প্রতাপনগরে বৃক্ষ কেটে বেড়িবাঁধ নির্মাণের অভিযোগ


এপ্রিল ২০ ২০২১

মশাল ডেস্ক: আশাশুনি উপজেলার প্রতাপনগরের পাউবোর বাঁধ ও চরের ভাঙ্গন রোধক ও পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষাকারি বনোজ বৃক্ষ কর্তন করে বেড়ি বাঁধ নির্মাণের অভিযোগ উঠেছে ঠিকাদারের বিরুদ্ধে।
প্রতাপনগর ইউনিয়নে হরিষখালির পূর্ব অংশে খোলপেটুয়া নদীর ঝুঁকিপূর্ণ বেড়িবাঁধ সংস্কার কাজ চলছে। বাঁধের লিভার সাইটের চরের ভাঙ্গন রোধে কেওড়া গাছের চারা রোপন করা হয়েছিল। এসব কেওড়া গাছ চর ও বাঁধ ভাঙ্গন রোধে কার্যকর ভূমিকা পালন করে এবং পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষা করে আসছে। ঠিকাদার চর থেকে ১৫/২০ টি কেওড়া বৃক্ষ উপড়ে ফেলেছে। ভেকো মেশিনের সাহায্যে বেড়ি বাঁধ নির্মাণের সুবিধার্থে বনোজ গাছগুলো উপড়ে ফেলানো হয়েছে। এব্যাপারে সাতক্ষীরা পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী শুধাংশু কুমার সরকার সাংবাদিকদের জানান, বিষয়টি আমি জানিনা। আপনাদের কাছ থেকেই শুনলাম। আর ওই গাছগুলো আমরাই লাগিয়েছিলাম, দেখি ব্যবস্থা নিচ্ছি।
অন্যদিকে, ঠিকাদার ছোট আকারের একটি ভেকো মেশিন দিয়ে বাঁধের কাজ করাচ্ছেন। যার চেইন ছিঁড়ে যাওয়ায় গত দুই সপ্তাহ অকার্যকর অবস্থায় পড়েছিল। তাছাড়া বেড়িবাঁধের গা ঘেঁষে মাটি উত্তোলন করে বাঁধ নির্মাণ কাজ করা হচ্ছে। এলাকাবাসী নিষেধ করলেও কোন তোয়াক্কা করা হচ্ছেনা। বেড়ী বাঁধের ক্ষতির সম্ভাবনা নেই এমন দূরবর্তী স্থান থেকে মাটি নিয়ে বাঁধ নির্মানের জন্য এলাকাবাসী উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

শ্যামনগর

যশোর

আশাশুনি


জলবায়ু পরিবর্তন