প্রতাপনগরে চাপান দেওয়ার কয়েক ঘন্টার মধ্যে ভেসে গেছে আম্ফান বিধ্বস্থ ভেড়ী বাঁধ


জুলাই ১৫ ২০২০

আশাশুনি উপজেলার প্রতাপনগর ইউনিয়নের হরিষখালীতে পাউবোর বেড়িবাঁধ সুপার সাইক্লোন আম্পানের তান্ডবে ভেঙে যাওয়ার ৫৩ দিন পর বাঁধা সম্ভব হলেও টিকিয়ে রাখা গেল না। বাঁধের কাজ শেষ করে শ্রমিকরা বাড়িতে ফেরার কিছুক্ষণের মধ্যে জোয়ারের পানির চাপে তা ভেসে গেছে। ফলে প্রতাপনগরবাসী আবারও খোলপেটুয়া নদীর জোয়ার-ভাটার সাথে একাকার হয়ে গেল। গত ৫৩ দিন এলাকার মানুষ চরম দুর্দশার মধ্যে মানবেতর জীবন যাপন করে আসছে। ইউপি চেয়ারম্যান শেখ জাকির হোসেনের নেতৃত্বে এলাকার হাজার হাজার মানুষের স্বত:স্ফূর্ত অংশগ্রহণে স্বেচ্ছাশ্রমের মাধ্যমে কাজ করে ১৩ জুলাই বাধের ক্লোজারে চাপানের কাজ শেষ করেন। কিন্তু নিয়তির নির্মম পরিহাস ভাঙন আটকানোর পর লক্ষ্য করা গিয়েছিল, জোয়ারের চাপে বাঁধটি হালকা ভিতরে চেপে গেছে। অবস্থা দৃষ্টিতে খুবই ঝুঁকিপূর্ণ মনে হওয়ায় জেনারেটরের আলো জ্বালিয়ে কিছু শ্রমিক কাজে নিয়োজিত রাখা হয়। কিন্তু না সকল প্রচেষ্টা ব্যর্থ হয়ে পুনরায় বাঁধটি ভেঙে এলাকা প্ল¬াবিত হয়ে যায়। এব্যাপারে পানি উন্নয়ন বোর্ডের নিয়োগকৃত সলিউশন ফোর্স্ট লিমিটেড প্রতিষ্ঠানের স্বত্বাধিকারী ঠিকাদার কামরুজ্জামান সোহাগ বলেন, গেলো সোমবার আমি বাঁধ চাপান দিতে চায়নি। ক্লোজার-এর কাজ পূর্বপরিকল্পনা অনুযায়ী মঙ্গলবার আমি বাঁধ চাপান দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম। গত সোমবার পানি উন্নয়ন বোর্ডের উর্দ্ধতন কর্মকর্তাবৃন্দ বাঁধ সংস্কার নির্মাণকাজ পরিদর্শনে আসেন। এসময় ইউপি চেয়ারম্যান শেখ জাকির হোসেন উপস্থিত হন। তাদের সিদ্ধান্ত মত চাপান কাজ সম্পন্ন করা হয়। বাঁধ চাপান দিয়ে পানি আটকানোর পর আমি অনেক শ্রমিক মজুরি দিয়ে জেনারেটর মাধ্যমে রাতেও কাজ চালিয়ে বাঁধ আটকাতে রাখার প্রাণপণ চেষ্টা করি কিন্তু তাতেও শেষ রক্ষা হয়নি।

শ্যামনগর

যশোর

আশাশুনি


জলবায়ু পরিবর্তন