প্রস্তাবিত বাজেটের বিষয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছে বিভিন্ন মহল


জুন ১৩ ২০২০

ন্যাশনাল ডেক্স : ২০২০-২১ অর্থ বছরের প্রস্তাবিত বাজেটের বিষয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছে বিভিন্ন মহল। বৃহস্পতিবার অর্থমন্ত্রী আ হ ম মোস্তফা কামাল জাতিয় সংসদে ২০২০-২১ অর্থবছরেরে জন্য ৫৬৮,০০০ কোটি টাকার যে বাজেট ঘোষণা করেছেন তাকে করোনাকালে দেশের অর্থনীতির সকল খাতের চাকাকে সচল রাখার একটি কার্যকর পদক্ষেপ বলে শুক্রবার মন্তব্য করেছেন ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। প্রস্তাবিত বাজেটকে ব্যবসা বান্ধব অন্তর্ভুক্তিমূলক বাজেট হিসেবে দেখছে দেশের ব্যবসায়ীমহলের একাংশ। তাদের মতে অপ্রদর্শিত অর্থবিনিয়োগের সুযোগ অর্থ পাচারের প্রবণতা কমাবে। তবে পোশাক শিল্পের শীর্ষ সংগঠন বিজিএমইএ বাজেটকে ইতিবাচক বললেও উৎসে কর না বাড়ানো এবং নগদ প্রণোদনায় কর অব্যাহতি চেয়েছে।

এদিকে, তাৎক্ষনিক প্রতিক্রিয়ায় বিএনপি, জাসদসহ অন্যান্য রাজনৈতিক দল করোনাকালে তাদের ভাষায় অবাস্তব এবং অবাস্তবায়ন যোগ্য এই বাজেট প্রস্তাবে জনগণের প্রত্যাশার প্রতিফলন ঘটেনি বলে জানিয়েছে। বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি বা সিপিবি তার প্রাথমিক প্রতিক্রিয়ায় বলেছে প্রস্তাবিত বাজেটের ৯৯ শতাংশই মানুষের স্বার্থ বিরোধী, গতানুগতিক ও আমলাতান্ত্রিক। সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অর্থ উপদেষ্টা ও অর্থনীতিবিদ ড. মির্জ্জা মোহাম্মদ আজিজুল ইসলাম সংবাদ মাধ্যমকে বলেছেন বাজেটে যেসব লক্ষ্য নির্ধারণ করা হয়েছে, তা বাস্তবায়নযোগ্য নয় বলে তিনি মনে করেন। এটি একটি আশান্বিত বাজেট হলেও তা বাস্তবায়ন দুরূহ হবে বলে মন্তব্য করেন তিনি। বেসরকারি গবেষণা প্রতিষ্ঠান সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগ বা সিপিডি এক অনলাইন ব্রিফিং সদ্য ঘোষিত এই বাজেটকে গতানুগতিক বলে আখ্যায়িত করে বলেছে করোনার ক্ষয়ক্ষতি লাঘব ও অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধারে যে ধরনের ইনোভেটিভ বাজেট দরকার ছিল সেটি হয়নি। করোনাকালে সরকার গুরুত্বপূর্ণ খাত হিসেবে স্বাস্থ্যখাতকে বিবেচনা করতে পারেনি বলে উল্লেখ করে সিপিডি বলেছে এবারের বাজেটে অনেক পরিকল্পনাই করা হয়েছে যেগুলো বাস্তবায়নযোগ্য নয় । দক্ষিণাঞ্চলে ঘূর্ণিঝড় আম্পানের ক্ষয়ক্ষতির উল্লেখ করে অর্থনীতিবিদরা বলেছেন বাজেটে এ বিষয়টিকে কোন গুরুত্বই দেয়া হয় নাই। বাজেট ঘোষণার পর বৃহস্পতিবার মধ্যরাত থেকেই সরকারের নির্দেশে মোবাইল সেবায় বর্তমান ১০ শতাংশ থেকে ১৫ শতাংশ বাড়তি হারে সম্পূরক শুল্ক কাটা শুরু করেছে দেশের মোবাইল ফোন অপারেটরগুলো। এর প্রতিবাদ করে গ্রাহকরা বলেছেন এর ফলে সাধারন মানুষ দুর্দশায় পড়বে।

শ্যামনগর

যশোর

আশাশুনি


জলবায়ু পরিবর্তন