দেবহাটায় সাপমারা খাল দখলের প্রতিবাদে মানববন্ধন


জুন ১০ ২০২০

সাতক্ষীরার দেবহাটায় সরকারী ১৯ কোটি টাকা বরাদ্দে চলমান পুনঃখনন কার্যক্রম শেষ হতে না হতেই প্রভাবশালী দেব কুমার বিশ্বাস কতৃক সাপমারা খাল দখল করে কংক্রিটের অবৈধ স্থাপনা নির্মানের প্রতিবাদে মানববন্ধন কর্মসূচী অনুষ্ঠিত হয়েছে।
বুধবার সকাল ৯টা থেকে সাতক্ষীরা জেলা মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের আয়োজনে পারুলিয়া-সখিপুর বাজার ব্রীজের উপর অবস্থান নিয়ে ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধন করেন উপজেলার রাজনৈতিক ও সুশীল সমাজের নেতৃবৃন্দসহ সকল শ্রেনী পেশার মানুষ।
মানববন্ধন কর্মসূচীতে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন দেবহাটা উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান জিএম স্পর্শ, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের আহ্বায়ক আবু রাহান তিতু, উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের সভাপতি মিজানুর রহমান মিন্নুর, ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম, উপজেলা ছাত্রলীগের বর্তমান সভাপতি সাইফুর রহমান সুমন, পারুলিয়া মৎস্য সেড কমিটির সভাপতি রজব আলী, সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হোসেন প্রমূখ।
এসময় বক্তারা বলেন, বর্তমান সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় ১৯ কোটি টাকা বরাদ্দে চলমান পুনঃখনন কার্যক্রমে যখন পারুলিয়া সাপমারা খালটি প্রান ফিরে পেতে শুরু করেছে, ঠিক তখনই সরকারের উন্নয়ন প্রচেষ্টাকে নস্যাৎ করে সাপমারা খাল দখলে নিয়ে খালের অভ্যন্তরেই কংক্রিটের অবৈধ স্থাপনা নির্মান করে চলেছে সখিপুর বাজারের জনতা ফার্মেসীর মালিক প্রভাবশালী দেব কুমার বিশ্বাস ওরফে দেবু বিশ্বাস।
খাল দখল করে অবৈধ স্থাপনা নির্মান দেশের প্রচলিত নদী আইনের চরম অবমাননাকর এবং প্রকৃতি ও পরিবেশের জন্য হুমকি স্বরুপ হওয়া স্বত্ত্বেও, দেবহাটা উপজেলা ভূমি অফিসের সার্ভেয়ার সাইদুর রহমানসহ গুটি কয়েক অসাধূ ব্যাক্তির প্রত্যক্ষ পরোক্ষ সহযোগীতায় মোটা টাকা ঘুষ লেনদেনের মাধ্যমে প্রশাসনের নাকের ডগায় প্রকাশ্যে সাপমারা খাল দখল করে কংক্রিটের অবৈধ স্থাপনা নির্মান করে চলেছে ওই প্রভাবশালী দেব কুমার বিশ্বাস।
এভাবে দখলদারিত্ব চলতে থাকলে আগামী কয়েক বছরের মধ্যে সাপমারা খালটি আবারো নাব্যতা হারিয়ে অস্তিত্ব সংকটে পড়তে পারে বলে আশংকা প্রকাশ করে বক্তারা আরো বলেন, ইতোপূর্বেও সাপমারা খালটি অবৈধ দখলদারদের দখল প্রবণতায় এবং নাব্যতা হারিয়ে অস্তিত্ব সংকটে পড়ায় সুদীর্ঘ সময় ধরে দেবহাটা উপজেলাবাসীকে জলাবদ্ধতাসহ তীব্র দূর্ভোগ পোহাতে হয়েছে।
সম্প্রতি সরকারী বরাদ্দে চলমান খনন কার্যক্রমের ফলে আবারো প্রান ফিরে পাচ্ছে সাপমারা খালটি। প্রকাশ্যে খাল দখল করে অবৈধ স্থাপনা নির্মান চলতে থাকলেও অদ্যবধি প্রশাসনের পক্ষ থেকে নির্মানাধীন অবৈধ স্থাপনাটি উচ্ছেদ এবং দখলদারের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন না করায় তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেন বক্তারা।
একই সাথে খাল রক্ষায় প্রশাসন এগিয়ে না এলেও দেশ ও মানুষের বৃহৎ স্বার্থে প্রয়োজনে নিজেদের খাল নিজেরাই রক্ষার ঘোষনা দেয়া হয় মানববন্ধন থেকে। মাননবন্ধন শেষে সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক এসএম মোস্তফা কামাল সরেজমিনে ঘটনাস্থল পরিদর্শন না করা পর্যন্ত সাপমারা খাল দখল করে নির্মানাধীন অবৈধ স্থাপনার নির্মান কাজ বন্ধ করে দেন এলাকাবাসী।

শ্যামনগর

যশোর

আশাশুনি


জলবায়ু পরিবর্তন