দেবহাটার চিহ্নিত মামলাবাজ ওহাব আলী কর্তৃক একাধিক মিথ্যা মামলার দায় থেকে অব্যাহতি সংবাদ সম্মেলন


জুন ৫ ২০২০

অবৈধভাবে সম্পত্তি দখল করতে দেবহাটার চিহ্নিত মামলাবাজ ওহাব আলী কর্তৃক একাধিক মিথ্যা মামলার দায় থেকে অব্যাহতি সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার দুপুরে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন দেবহাটা উপজেলার ধোপাডাঙ্গা গ্রামের মৃত. আব্দুর রহিম সরদারের পুত্র আব্দুস সামাদ।
লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, আমি একজন অসহায় নিরিহ প্রকৃতির মানুষ। ধোপাডাঙ্গা মৌজায় বিভিন্ন স্থানে থাকা পৈত্রিক সম্পত্তি অবৈধভাবে দখলের চক্রান্তে লিপ্ত হয় একই এলাকার ওহাব আলী ও তার পুত্র মহিউদ্দীন। অথচ ওই সব সম্পত্তি ১৯৭১ সালের পূর্বের আমার পিতা ক্রয় করেন। সে অনুযায়ী আমার দীর্ঘদিন খাজনাদি পরিশোধ পূর্বক ভোগদখল করে আসছি। বর্তমান রেকর্ডও আমার নামে রয়েছে। এরপরও পর সম্পদ লোভী ওহাব আলী ও তার পুত্র মহিউদ্দীন জনৈক হারান গাজীর কাছ থেকে একটি পাওয়ার অব এ্যাটার্নী করে নিয়েছে। ওই পাওয়ার অব এ্যাটার্নীর বুনিয়াদে তারা আমাদের সম্পত্তি দখলের চেষ্টা করে যাচ্ছে। কিন্তু হারান গাজীর পিতা মৃত. সোনাই গাজী জীবিত থাকা অবস্থায় ওই সম্পত্তি অন্যত্র বিক্রয় করেন। তাহলে হারানের পাওয়ার অব এ্যাটার্নী দেওয়ার কোন ক্ষমতায় নেই।
তার মৎস্যঘেরের মধ্যে থাকার আমার ১৫ শতক সম্পত্তি কোন হারির টাকাও পরিশোধ করে না। কিন্তু বিগত ২০১৪ সাল পর্যন্ত ওই ব্যক্তিই আমাকে হারির টাকা প্রদান করেছে। ২০১৫ সাল থেকে আর পরিশোধ করে না। এবিষয়ে প্রতিবাদ করতে গেলে মামলাবাজ ওহাব আলী আমার বিরুদ্ধে একের পর এক মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করে যাচ্ছে। অথচ উক্ত সম্পত্তির বিষয়ে সেই আদালতে মামলা দায়ের করেছে। মামলার রায় আসার অপেক্ষা না করে সাঙ্গ পাঙ্গ নিয়ে গায়ের জোরে আমার পৈত্রিক সম্পত্তি দখলের পায়তারা চালিয়ে যাচ্ছে। সম্প্রতি পবিত্র ঈদ উল ফিতরের পরের আমি আতœীয় বাড়িতে বেড়াতে যায়। সেখান থেকে ফিরে এসে শুনতে পাই ওই ওহাবের মৎস্যঘেরে কে বা কারা বিষ প্রয়োগ করে মাছ মেরে ফেলেছে। সেখানেও নাকি আমাকেসহ কয়েকজনকে আসামী করার চেষ্টা করছে ওহাব আলী। অথচ ঘটনার সময় আমি বাড়িতেই ছিলাম না। আর ঘটনার বিষয়টি বাড়ি ফিরে শুনেছি। তাহলে কিভাবে ওই মৎস্যঘেরে বিষ প্রয়োগ করলাম।
ওই ওহাব আলীর উদ্দেশ্যে আমাকে মামলায় মামলায় জর্জরিত করে জেল খাটিয়ে ভিটেমাটি ছাড়া করে আমার পৈত্রিক সম্পত্তি অবৈধভাবে দখল করে নিবে। আর সে উদ্দেশ্যেই একবার পিতা বাদী হয়ে, আরেক বার পুত্র বাদী হয়ে মিথ্যা মামলা দায়ের করে যাচ্ছে। শুধু আমার বিরুদ্ধেই না আমার ভাইসহ প্রতিবেশী অনেকের বিরুদ্ধে সে মিথ্যা মামলা দায়ের করেছে। আমি বর্তমানে মিথ্যা মামলার বোঝা মাথায় নিয়ে দিশেহারা হয়ে পড়েছি। তিনি ওই পরসম্পদ লোভী মামলাবাজ ওহাব আলী ও তার পুত্র কর্র্তৃক দেওয়া মিথ্যা মামলার হাত থেকে পরিত্রাণ এবং আমার পৈত্রিক সম্পত্তির রক্ষার জন্য সাতক্ষীরা পুলিশ সুপারসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

শ্যামনগর

যশোর

আশাশুনি


জলবায়ু পরিবর্তন