কলারোয়া সদরের রাস্তা সংস্কারের অভাবে বেহালদশা কাঁদা-পানি ও ধুলায় অথিষ্ঠ্য পথচারী


জুন ২০ ২০২০


হুমায়ন কবির মিরাজ: দীর্ঘদিন সংস্কারের অভাবে সাতক্ষীরা জেলার কলারোয়া উপজেলার প্রাণকেন্দ্রের সাতক্ষীরা-যশোর মহসড়কের গবিনাথপুর স্কুল থেকে হেলাতলা ইউনিয়ন পরিষদ মোড় প্রর্যন্ত রাস্তার বেহাল দশায় মৃত্যু ফাঁদে পরিনত হয়েছে। সড়কের পাশে রয়েছে গবিনাথপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, কলারোয়া প্রি-ক্যাডেট স্কুল, কলারোয়া সরকারি কলেজ, কলালোয়া আল-হাদিস মসজিদ, কলালোয়া বাজার কেন্দ্রিক সরকারি পাইলট স্কুল, কলারোয়া থানা, কলারোয়া প্রাণী সম্পদ অধিদপ্তর একই অবস্থানে কলারোয়া উপজেলা পরিষদ, কলালোয়া পৌরসভা, বঙ্গবন্ধু পাঠাগার, কলারোয়া আলিয়া মাদ্রাসা, কলারোয়া পোষ্ট অফিস, কলালোয়া পল্লি বিদ্যুত অফিস, শেখ আমানুল্লাহ ডিগ্রি কলেজ, কলারোয়া ডায়বেটিজ সেন্টার ও হেলাতলা ইউনিয়ন পরিষদসহ বিভিন্ন সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান।
প্রতিদিন এ সড়কে যাওয়ার পথে বিভিন্ন শ্রেনির কর্মরত শ্রমিক, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের কমলমতি শিক্ষার্থী, সরকারি চাকুরিজীবি, বিভিন্ন দোকান পাটের কর্মচারি ও ব্যবসায়ীসহ হাজার হাজার মানুষের মানুষ আসা যাওয়ার সময় প্রতিনিয়ত দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছে।
এতে করে ওই এলাকার যাত্রীরা প্রতিদিন চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছে। বিগত সরকার আমলে সরসকাঠি, চাঁনদুড়িয়া, কেঁড়াগাছিসহ ১২ ইউনিয়নসহ সাতক্ষীরা-যশোর মহাসড়কের এই রাস্তা দিয়ে যাতায়াতের সুবিধার্থে এবং এলাকায় উৎপাদিত কৃষি পণ্যের বাজারজাত করা, রোগী নিয়ে সহজে উপজেলা সদর হাসপাতালে যাওয়া, মালবাহী ট্রাক, ঢাকা থেকে সাতক্ষীরা যাওয়ার বিভিন্ন পরিবহন, লোকাল বাস ও ব্যবসায়ীদের দ্রুত শহরে ও জেলা শহর সাতক্ষীরায় পৌছানোর জন্য বিভিন্ন কর্মরত মানুষের কর্মস্থল ও স্কুল কলেজে যাওয়ার লক্ষে সড়কটি গবিনাথপুর স্কুল থেকে হেলাতলা ইউনিয়ন পরিষদ মোড় প্রর্যন্ত যশোর-সাতক্ষীরা মহাসড়ক নির্মাণ করা হয়।
খানা খন্দে ভরা বেহাল যশোর-সাতক্ষীরার মহাসড়ক বিভিন্ন জাগায় পুনঃসংস্কার হলেও গবিনাথপুর স্কুল থেকে হেলাতলা ইউনিয়ন পরিষদ মোড় প্রর্যন্ত দীর্ঘদিন সংস্কারেরও কোন উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়নি। স্থানীয় এলাকাবাসী বিভিন্ন সময় জনপ্রতিনিধি বরাবর ও সড়ক জনপদের বিভিন্ন দপ্তরে রাস্তাটি সংস্কারের দাবি জানিয়ে আসলেও পুনঃসংস্কারের ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি। বর্ষা মৌসুমে বৃষ্টির কারণে কয়েক বছরে রাস্তাটি ভেঙ্গে খানা খন্দে, বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়।
এখন সড়কটি ভেঙ্গে পুরোপুরি চলাচল অনুপযোগী হয়ে মৃত্যু ফাঁদে পরিনত হয়েছে। নির্বাচন পূর্ববতী সময়ে জনপ্রতিনিধিরা রাস্তাটি পুনঃসংস্কারের জন্য কথা দিলেও কেউ কথা রাখেনি। এলাকাবাসী স্থানীয় সাংসদ সদস্যসহ সড়ক ও জনপদের বিভিন্ন কর্মকর্তার কাছে এ ব্যাপারে বারবার আবেদন করে অবহিত করলেও তারা সংস্কারের কোন উদ্যোগ গ্রহণ না করায়, চরম অবহেলিত এ সড়কটি দিয়ে চলাচলরত পথচারীদের দূর্ভোগ আজ চরমে পৌঁছেছে। পথচারি, এলাবাসীসহ বিভিন্ন মহলের জনসাধারনের প্রানের দাবি যাতে এই মহাসড়কটি দ্রুত পুনঃসংস্কার হয় তার দৃষ্টি আকর্ষন করেছে।

শ্যামনগর

যশোর

আশাশুনি


জলবায়ু পরিবর্তন