বস্ত্রবয়ন থেকে বস্ত্রহরণ, পুরুষদেরই ‌টানাপোড়েন


এপ্রিল ১৯ ২০২০

Spread the love

:‌ লক ডাউনের দিনে এও এক অভিনব শাড়ি চ্যালেঞ্জ। পুরুষরা শাড়ি পরুন। সেই ভিডিও পোস্ট করুন সোশাল মিডিয়ায়। আর অর্থসংগ্রহ করুন দেশের বিপন্ন তঁাতিদের জন্যে। ১০ মিনিটের ছবি ‘‌শাড়ি মেন’‌–এর মাধ্যমে বার্তা দিলেন পরিচালক কিউ।
কিউ, যথারীতি অন্যচোখে দেখেছেন পুরুষ এবং শাড়ির সম্পর্ক। বলেছেন, শাড়ির সঙ্গে জড়িয়ে আসলে পুরুষরাই। মহাভারত থেকে ফুলিয়া, তঁাতের টানাপড়েনে বুনে চলা শাড়ি তৈরির আখ্যান থেকে আলো–জ্বলা, এমনকী ধ্যানমন্ত্র উচ্চারণ করা শাড়ি— সবের পেছনে মাথা বলুন, হাত বলুন, সবই পুরুষের। কৌরবদের রাজসভায় পৌরুষের যে দাপট, লালসার যে হাত দ্রৌপদীর শরীর থেকে শাড়ি টেনে খুলে নিয়ে বিবস্ত্র করতে চায়, সেই পুরুষই কী আলতো যত্নে শাড়ির গায়ে ফুলের নকশা তোলে। অথবা, বাজারে, শাড়ির দোকানে, অদ্ভুতভাবে যে দোকানগুলো প্রায় সবই পুরুষচালিত, সেখানে সেলস্‌ম্যান ছেলেটি যখন শাড়ির আঁচল দেখাতে গিয়ে নিজের বুক ঢাকে শাড়িতে, তখন সে অজান্তেই অতিক্রম করে যায় নিজের লিঙ্গ পরিচয়।

আমাদের চোখের সামনে থাকা ছবিগুলোকে পর পর জুড়ে নিয়ে নতুন ভাবনার খোরাক দিলেন কিউ। সুতো কাটা, রঙ করা থেকে শুরু করে হাতে চালানো তঁাতে শাড়ি বোনা— বয়নশিল্পের চিরাচরিত ছবিটি দেখানোর অছিলায় ‘‌শাড়ি মেন’ বলতে চাইল সারা দেশের তাঁতিদের বিপন্নতার কথা। তঁাদের সাহায্য করতে কিউ–র প্রযোজনা সংস্থা ‘‌অডজয়েন্ট’ একটি তহবিল গড়তে চায়। সেই তহবিলে দান করতে আগ্রহীরা, (‌শুরুতে পুরুষরা এগিয়ে এলে ভাল) নিজেদের শাড়ি পরার ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করুন। তারপর অর্থসংগ্রহ করার উদ্দেশ্যটি উল্লেখ করুন। শেষে এই চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিন অন্য কারও দিকে। সংগৃহিত টাকা দেশের তাঁতিদের কাছে পৌঁছে দেবে ‘‌অডজয়েন্ট’ এবং আরও দুই সংস্থা ‘‌বর্ডার অ্যান্ড ফল’‌ ও ‘‌ডাস্টকার’‌।

শ্যামনগর

যশোর

আশাশুনি


জলবায়ু পরিবর্তন