দেবহাটায় আইন শৃঙ্খলা সভায় ব্যানারে নাম আগে-পরে দেয়াকে কেন্দ্র করে হট্টগোল


জানুয়ারি ১৩ ২০২০

Spread the love

বিশেষ প্রতিনিধি, দেবহাটা: দেবহাটা উপজেলা আইন শৃঙ্খলা কমিটির মাসিক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার সকাল ১০ টায় দেবহাটা উপজেলা পরিষদ হলরুমে সভাটি অনুষ্ঠিত হয়। পাশাপাশি অনুষ্ঠিত হয়েছে দেবহাটা উপজেলা চোরাচালান নিরোধ, সন্ত্রাস ও নাশকতা প্রতিরোধ, মানব পাচার প্রতিরোধ, যৌতুক ও বাল্য বিবাহ নিরোধ এবং নারী ও শিশু নির্যাতন প্রতিরোধ কমিটির মাসিক সভা। সভা চালাকালীন সময়ে উপজেলার বিভিন্ন অনুষ্ঠানের ব্যানারে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকের নাম আগে এবং ভাইস চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান সবুজের নাম পরে দেয়াকে কেন্দ্র করে তুমুল হট্টগোলের সৃষ্টি হয়। ভাইস চেয়ারম্যান সবুজের দাবী, তিনি ভাইস চেয়ারম্যান, তাই নিয়ম মোতাবেক তার নামটি উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকের নামের উপরে থাকতে হবে। এদিকে ক্ষমতাসীন দলের শীর্ষ পদ এবং সংশ্লিষ্ট সংসদ সদস্যের প্রতিনিধি হওয়ায় নুন্যতম মর্যাদা ও গুরুত্ব হিসেবে নিজেদের নামটি সম্মানজনক স্থানে হওয়া আবশ্যক বলে মনে করেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব মুজিবর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান মনি সহ উপজেলা আওয়ামী লীগের অন্যান্য নেতৃবৃন্দ এবং ইউপি চেয়ারম্যনরা। তুমুল হট্টগোলের একপর্যায়ে পরিস্থিতি শান্ত করতে আইন শৃঙ্খলা কমিটির সভা সমাপ্ত ঘোষনা করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সাজিয়া আফরীন। এরআগেও সাতক্ষীরা-০৩ আসনের সংসদ সদস্য অধ্যাপক ডাঃ আ.ফ.ম রুহুল হক এবং জেলা প্রশাসক এসএম মোস্তফা কামালের উপস্থিতিতে অনুষ্ঠিত অপর একটি সভায় নাম আগে-পরে দেয়াকে কেন্দ্র করে উভয়ের মধ্যে তুমুল বাকবিতন্ডতা হয়েছিলো। চলমান এ পরিস্থিতিতে প্রায়ই ব্যানারে নাম লেখার ক্ষেত্রে বিপাকে পড়তে হচ্ছে উপজেলা প্রশাসনকে। এমনকি পত্রিকার নিউজে নাম দেয়ার ক্ষেত্রেও প্রতিনিয়ত বিপাকে পড়ছেন সাংবাদিকরা।
সভা গুলোতে দেবহাটা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাজিয়া আফরীনের সভাপতিত্বে অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন দেবহাটা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বিপ্লব কুমার সাহা, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব মুজিজর রহমান, সাধারন সম্পাদক মনিরুজ্জামান মনি, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান সবুজ, সখিপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শেখ ফারুক হোসেন রতন, দেবহাটা প্রেসক্লাবের সভাপতি আব্দুল ওহাব, সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুল হাসান শাওন, সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবু বকর গাজী, পারুলিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম, কুলিয়া ইউনিয়ন পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান আসাদুল ইসলাম, উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা অধীর কুমার গাইন, স্বাস্থ’্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ আব্দুল লতিফ, শিক্ষা কর্মকর্তা প্রণব কুমার মল্লিক, মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আব্দুর হাই রকেট, মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা নাসরিন নাহার, খানজিয়া বিজিবি’র কোম্পানী কমান্ডার জিন্নাত আলী শেখ, টাউনশ্রীপুর বিজিবির নায়েব সুবেদার সেলিম রেজা প্রমুখ। সভায় উপজেলাব্যাপী আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি সমুন্নত রাখতে ও অপরাধ প্রবণতা হ্রাসে পুলিশের কার্যক্রম অধিক জোরদার, চোরাচালান নিরোধে বিজিবি’র অভিযান অব্যহত ও মাদক ব্যবসায়ী এবং চোরাকারবারীদের তালিকা প্রস্তুত, সন্ত্রাস ও নাশকতা প্রতিরোধে স্ব স্ব এলাকায় পুলিশের পাশাপাশি গ্রাম পুলিশের টহল সহ কড়া নজরদারি, একই সাথে সন্ত্রাসী ও নাশকতাকারীদের গ্রেপ্তাতে অভিযান অব্যহত রাখা, নারী ও শিশু নির্যাতন প্রতিরোধ সহ বাল্য বিবাহ নিরোধে প্রচারাভিযান ও বাস্তবায়নের জন্য বিস্তারিত আলোচনা শেষে গুরুত্বপুর্ন সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

শ্যামনগর

যশোর

আশাশুনি


জলবায়ু পরিবর্তন