এলাকায় ফিরে বেপোরোয়া হয়ে উঠেছে সাতক্ষীরায় চঞ্চল্যকর মামুন হত্যা মামলার চার্জশীট ভুক্ত আসামি


জানুয়ারি ১ ২০২০

Spread the love


সাতক্ষীরা সিটি কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি প্রভাষক মামুন হত্যা মামলার চার্জশীট ভুক্ত আসামী ও জামায়াতের অর্থ যোগানদাতা ভুমিদস্যু মোস্তফা মাহবুবুল আলম ও তার সহোদর রফিুকুল হাসান আবারো এলাকায় ফিরে এসে ত্রাস সৃষ্টি করছে। তার সাদ্দাম বাহিনী বেপোরোয়া হয়ে উঠায় সাধারন মানুষের মধ্যে আতংক সৃষ্টি হয়েছে।
আশাশুনি উপজেলার শ্রীউলা গ্রামের বদরুদ্দোজা চৌধুরির ছেলে কামরুল কবির জানান, কালিগঞ্জ উপজেলার চাম্পাফুল ইউনিয়নের চান্দুলিয়া এলাকায় তার ১২ বিঘা একটি মৎস্য ঘের আছে। আদালত তাদের শান্তি শৃঙ্গলা বজার রাখার জন্য নির্দেশ প্রদান করে। কিন্তু মামুন হত্যা মামলার চার্জশীট ভুক্ত আসামী শ্রীউলা গ্রামের মৃত ফজলুর রহমান সরদারের ছেলে মোস্তফা মাহবুবুল আলম ও তার ভাই জামায়াতের অর্থ যোগানদাতা রফিকুল হাসান তাদের হাতে গড়া সাদ্দাম বাহিনী রাতের অন্ধকারে ঘেরটি দখল করে নেয়। তিনি আরও বলেন এলাকায় যাদের জায়গা জমি নিয়ে সমস্যা আছে এই সাদ্দাম বাহিনী সেখানে হাজির হয়ে জমি দখল করে নেয়। বিশেষ করে সংখ্যালগু সম্প্রদায় তাদের ভয়ে সবসময় আতংক থাকে। তারা এলাকায় সাধরন মানুষের নামে থানায় ও আদালতে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করে থাকে। তার জাল দলিল ও ভুয়া পাওয়ারনামা তৈরি করে প্রতারনা করে থাকে।
জামায়াতে অর্থযোগানদাত রফিকুল হাসানের স্ত্রী শারমিন সুলতানা জানান, তাকে জামায়াতের কাজ করার জন্য বলে। কিন্তু তিনি রাজি না হওয়ায় তার উপর চলে নির্যাতন। তিনি আরও বলেন তার স্বামী সক্রিয়ভাবে জামায়াতে অর্থযোগানদাতা। সে বিভিন্ন ভাবে এলাকায় সাধারন মানুষের জমি দখল করে থাকে। এবং এলাকায় তার ত্রাস সৃষ্টির জন্য তার গড়া সাদ্দাম বাহিনী আছে। এ ঘটনায় তিনি তার স্বামীর বিরুদ্ধে সাতক্ষীরা সদর থানায় ১৮৩৫ নং সাধারন ডায়রি করেন।
এ বিষয়ে রফিকুল হাসান জানান তার নামে যে সব মামলা আছে তিনি জামিনে রয়েছেন।
আাশাশুনি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুস সালাম জানান, আমরা অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যাবস্থা গ্রহন করবো।

শ্যামনগর

যশোর

আশাশুনি


জলবায়ু পরিবর্তন