মোস্তাফিজেই চাপা বাংলাদেশের পরাজয়


জুলাই ৬ ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক : এশিয়ার দুই প্রতিদ্বন্দ্বী বাংলাদেশ ও পাকিস্তান বলে কথা। তাও আবার ক্রিকেটের তীর্থস্থান লর্ডসে বিশ^কাপের আসর। আর সেখানেই প্রতাপের সাথে খেলে ৭৫ রানে ৫ উইকেট নিয়েছেন কাটার মাস্টার মোস্তাফিজুর রহমান। আর এজবাস্টনে ৫৯ রানে ৫ উইকেট নিয়েছিলেন তিনি। বাংলাদেশে তিনিই প্রথম যিনি বিশ^কাপে এতো উইকেট লাভ করলেন। শুক্রবার মোস্তাফিজের এই পারফরমেন্স বাংলাদেশকে গর্বিত করেছে। গর্বিত সাতক্ষীরাবাসীও।
মোস্তাফিজের ক্রিকেট শিক্ষক সাতক্ষীরার মোফাচ্ছিনুল ইসলাম তপু বলেন মঙ্গলবার এজবাস্টনের খেলায় ভারত পথ হারিয়েছিল মোস্তাফিজের কারণে । আর লর্ডসেও পাকিস্তানের একই হাল করে ছাড়েন মোস্তাফিজ। ৫০ ওভার শেষে পাকিস্তান গড়লো ৯ উইকেটে ৩১৫ রান। ৩১৬ এর টার্গেটে মাঠে নামে বাংলাদেশ। বাংলাদেশের হারকে মোস্তাফিজের সেঞ্চুরি ম্লান করে দিয়েছে।
মোস্তাফিজ প্রথম বাংলাদেশি যিনি বিশ^কাপে টানা দ্বিতীয়বার ৫ উইকেট নিয়ে কীর্তি গড়লেন । টাইগারদের ওপর চড়াও হওয়া পাকিস্তানের বাবর আজমকে শতকের আগেই ফেরানো সম্ভব হয়েছে ঠিকই। কিন্তু রান রেট ততক্ষনে বেশ ওপরে। শতক পেলেন ইমাম। মনে হচ্ছিল রান রেট ৩৫০ ছাড়িয়ে যাবে। কিন্তু লাগাম টেনে ধরলেন মোস্তাফিজ। এজবাস্টনে তিনি নিয়েছিলেন ৫ উইকেট। এবারও ৫ উইকেট। মোস্তাফিজ চতুর্থ দ্রুততম মানব হিসাবে ১০০ উইকেট পেয়ে সেঞ্চুরি করলেন।
সাতক্ষীরা জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাবেক সাধারন সম্পাদক শেখ নিজামউদ্দিন বলেন আমরা গর্বিত মোস্তাফিজের পারফরমেন্সে। তার কাছ থেকে আরও ভালো কিছু আশা করছি। তিনি বলেন মোস্তাফিজের আরও রুদ্র মুর্তি দেখতে চাই। মোস্তাফিজ যখন সাতক্ষীরায় অনুর্ধ ১৪ ও অনুর্ধ ১৬ খেলেছে তখন সাতক্ষীরার তরুন ক্রিকেটাররা উজ্জীবিত হয়ে দলে দলে মাঠে নেমেছিল। মোস্তাফিজ এই তরুণদের অনুপ্রেরণা উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন তার এবারের পারফরমেন্সে তারা আরও উৎসাহিত হবে।


শ্যামনগর

যশোর

আশাশুনি


জলবায়ু পরিবর্তন