সাতক্ষীরায় উন্নত বিদ্যুৎ সেবা প্রদানে ওয়েষ্টজোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানীর উদ্যোগ


মে ১১ ২০১৯


নিজস্ব সংবাদদাতা ঃ ‘নিরবচ্ছিন্নভাবে বিদ্যুৎ সরবরাহের লক্ষ্যে একযোগে পুরাতন তার অপসারণ করে নতুন তার সংযোগর কারণে সাময়ীক গ্রাহক সেবার ত্রুটি হচ্ছে। অন্যান্য সমস্যা কাটিয়ে খুব দ্রুত সাতক্ষীরার বিদ্যুৎ সরবরাহ ব্যবস্থা আধুনিক ও নিরবচ্ছিন্ন গ্রাহক সেবা প্রদান করা হবে।’ এব্যাপারে ওয়েষ্টজোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানী লিঃ সাতক্ষীরা বিদ্যুৎ সরবরাহ সাতক্ষীরা’র নির্বাহী প্রকৌশলী মো. হাবিবুর রহমান, বলেন, প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার কার্যকর দিকনির্দেশনায় বিদ্যুৎ বিভাগ সফলতার সাথে কাজ করে যাচ্ছে। লোড শেডিং এখন নেই। এক সময় বিদ্যুতের জন্য রাস্তা ঘাট অবরোধ করা হতো, বিদ্যুৎ অফিস ভাঙচুর করা হতো। ঘণ্টার পর ঘন্টা লোডশেডিংয়ে নিমজ্জিত থাকতো মানুষ। কলকারখানা, ব্যবসা বাণিজ্য, উৎপাদন স্থবির হয়ে থাকতো বিদ্যুতের অভাবে। প্রধানমন্ত্রীর একক জাদুকরী নেতৃত্বে সে সকল খবর আজ জাদুঘরে। শত প্রতিকূলতার বিরুদ্ধে গিয়ে শেখ হাসিনার সাহসী নেতৃত্বে বিদ্যুৎ উৎপাদন এগিয়ে যাচ্ছে। ঠিক তেমনিভাবে সাতক্ষীরাতে বিদ্যুৎ বিভাগ জনগণের আস্থা অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে। হাজার হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে অত্যাধুনিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মিত হচ্ছে। যার কারণে একদিকে যেমন বিদ্যুতের চাহিদা বাড়ছে এবং অন্যদিকে জনগণও নিরবচ্ছিন্নভাবে বিদ্যুৎ সরবরাহ পাচ্ছে। তার মানেই দেশ উন্নতির দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। একটি দেশের উন্নতি এবং সমৃদ্ধির জন্য নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ আবশ্যক এবং সেটা জনগণের কাছে পৌঁছে দিচ্ছে জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন বর্তমান সরকার। চলছে পবিত্র রমজান মাস। এ মাসটি হচ্ছে মুসলমানদের জন্য ইবাদত বন্দেগীর মাস। তাই রমজান মাসে সাতক্ষীরাতে নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ করার বিষয়ে আমরা বদ্ধপরিকর। বিদ্যুতের উন্নয়নের স্বার্থে ইতিমধ্যে সাতক্ষীরায় ১৮ হাজার প্রিপেইড মিটার স্থাপন করা হয়েছে। সাতক্ষীরা শহরের প্রায় ৯৬ কি.মি. সঞ্চালনের তার পুরাতন ও জরাজীর্ণ হওয়ায় ছোটখাট কারণে লিকেজ সৃষ্টি হয়। এসব লিকেজ খুঁজে বের করতেও অনেক কষ্ট হয়। সম্প্রতি ক্রুটিপূর্ণ ওই ৯৬ কিমি তার সম্পূর্ণ পাল্টিয়ে ফেলার কাজ শুরু করা হয়েছে। সাতক্ষীরা শহরের চাহিদা অনুযায়ী ১৭ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ ন্যাশনাল গ্রিড থেকে বিদ্যুৎ পাওয়া সম্ভব হয়েছে। কোন লোড শেডিং নেই। সঞ্চালন লাইন সংস্কার ও মেরামতের কারণে মাঝে মাঝে বিদ্যুৎ সংযোগ বন্ধ রাখতে হচ্ছে। এছাড়াও সড়ক সম্প্রসারণের জন্য বিদ্যুতের খুঁটি স্থানান্তরের কারণে বিনেরপোতা ৩৩ কেভি বিদ্যুৎ কেন্দ্র থেকে সংযোগ বিচ্ছিন্ন রাখতে হয়। রাতে অনেক সময় বহু বাড়িতে অননুমোদিত এসি চালানোর কারণে ওভারলোড হয়ে ট্রান্সমিটারের ফিউজ আউট হয়ে বিদ্যুৎ সরবরাহ ব্যাহত হচ্ছে। তিনি সাময়ীক সমস্যার কারণে শহরবাসীর কষ্টে দুঃখ প্রকাশ করে বলেন, দ্রুত সকল সংস্কার কাজ শেষ করে সাতক্ষীরা শহরবাসীকে নিরবচ্ছিন্নভাবে বিদ্যুৎ সরবরাহের ব্যবস্থা করা হবে এবং পুরনো তার বদলসহ অন্যান্য সমস্যাও কাটিয়ে খুব দ্রুত সাতক্ষীরার বিদ্যুৎ সরবরাহ ব্যবস্থা আধুনিক ও নিরবচ্ছিন্ন করা সম্ভব হবে বলে জানান নির্বাহী প্রকৌশলী।

শ্যামনগর

যশোর

আশাশুনি


জলবায়ু পরিবর্তন