শ্যামনগরে দুই মাদ্রাসার ছাত্রীকে পাচারকালে উদ্ধার ও পাচারকারী আটক


এপ্রিল ২২ ২০১৯


শ্যামনগর ব্যুরো ঃ শ্যামনগর থানা পুলিশের তৎপরতায় পাচারকালে ২ মাদ্রাসা ছাত্রী উদ্ধার হয়েছে। গত রোববার সন্ধ্যা ৭ টার দিকে শ্যামনগর উপজেলা সদর সংলগ্ন বাস টার্মিনাল হতে পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) মোস্তফা আলম ওই ২ ছাত্রীকে উদ্ধার করে। এসময়ে পাচারকারীকেও আটক করে পুলিশ। এঘটনায় শ্যামনগর থানায় মামলা হয়েছে। পুলিশ ঘটনার সাথে সংশ্লিষ্টতার অভিযোগে ৩ জনকে আটক করেছে। পাচারকৃত ২ মাদ্রাসা ছাত্রী হলো- গাবুরা ইউনিয়নের নাপিতখালি গ্রামের মৃত কোবাত মোড়লের মেয়ে স্থানীয় পিজে আলীম মাদ্রাসার ৭ম শ্রেণীর ছাত্রী সাদিয়া খাতুন (১৩) এবং একই গ্রামের ইব্রাহিম গাইনের মেয়ে পিজে আলিম মাদ্রাসা ৮ম শ্রেণীর ছাত্রী লিপিজা খাতুন (১৪)। পাচারকারী হলো- চকবারা গ্রামে হযরত গাজীর মেয়ে করুনা খাতুন (২৯)। শ্যামনগর থানায় সরেজমিনে পাচারকৃত ওই দুই ছাত্রীর সাথে কথা হলে জানায়, করুনা খাতুন গার্মেন্টস-এ মোটা বেতনে চাকুরি দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে গত শুক্রবার সকাল ১০ টার দিকে গাবুরা খেয়াঘাট থেকে লঞ্চ যোগে খুলনা হয়ে পাবনায় ইট ভাটায় নিয়ে আটকে রাখে। পাচারের বিষয়টি বুঝতে পেরে লিপিজা কৌশলে মোবাইল ফোনে বাড়িতে মাকে জানালে পরিবারের পক্ষ থেকে তাৎক্ষনিক শ্যামনগর থানা পুলিশকে অবহিত করে। থানা পুলিশের এসআই মোস্তফা আলম পাচারকারী করুনার বড় ভাই শাহাদাত হোসেন ও অপর সহযোগী আমিনুর কে আটক করে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে দুই ছাত্রীকে হাজির করার তাগিদ দেওয়ায় তারা ফিরে আসে। গত রোববার সন্ধ্যায় শ্যামনগর বাস টার্মিনাল হতে দুই ছাত্রীকে উদ্ধার সহ পাচারকারীকে আটক করে পুলিশ। শ্যামনগর থানার ওসি হাবিল হোসেন জানান, উদ্ধারকৃত ২ ছাত্রীকে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে এবং পাচারকারী ৩ জনকে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

শ্যামনগর

যশোর

আশাশুনি


জলবায়ু পরিবর্তন