প্রেমের ফাঁদে ফেলে চাঁদা দাবি : গ্রেফতার-১


আগস্ট ২৮ ২০১৮

নিজস্ব প্রতিনিধি: সাতক্ষীরার এক যুবককে প্রেমের ফাঁদে ফেলে এক গৃহবধূ ও তার স্বামী ২ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করায় স্বামীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। সোমবার রাতে যশোর জেলার কেশবপুর উপজেলার কাথন্ডা গ্রাম থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় সুচতুর ওই গৃহবধূ জাহানারা খাতুন পালিয়ে গেছে।
গ্রেফতারকৃত ব্যক্তির নাম সিরাজুল ইসলাম মোড়ল (৪৫)। তিনি যশোরের কেশবপুর উপজেলার কাথন্ডা গ্রামের ইন্তাজ আলী মোড়লের ছেলে।
পুলিশ সূত্রে জানা যায়, সাতক্ষীরা শহরের পলাশপোল এলাকার যুবক গাউসুল আযম সাকিলের সাথে পূর্ব পরিকল্পনা করে মোবাইলে পরকিয়া প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলেন কেশবপুরের কাথন্ডা গ্রামের সিরাজুল ইসলাম মোড়লের স্ত্রী জাহানারা খাতুন।
মোবাইলে প্রেমের এক পর্যায়ে ওই গৃহবধূ গত রোববার কুরবানীর মাংশ খাওয়ার জন্য দাওয়াত করেন যুবক সাকিলকে। সাকিল যথারিতি সেখানে দাওয়াত খেতে যায়। এক পর্যায়ে ওই গৃহবধূ ও তার স্বামী দু জন মিলে তাকে ঘরে আটকে রেখে তার (সাকিলের) মোবাইল থেকে ফোন করে তার পরিবারের কাছে ২ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে।
বিষয়টি সাথে সাথেই সাতক্ষীরা সদর থানা পুলিশকে অবহিত করেন সাকিলের বাবা সিরাজুল ইসলাম । এরপর পুলিশ কৌশলে সাকিলেরর পরিবারের পক্ষ থেকে ওই গৃহবধূর সাথে মোবাইলে কথা বলে দাবীকৃত টাকা পরিশোধের জন্য বিকাশ নাম্বার চান। পুলিশ প্রথমে নাম্বারে ১০ হাজার টাকা বিকাশ করেন। এরপর সাদা পোশাকে কেশবপুর পুলিশের সহায়তায় ওই বিকাশ নাম্বারটির খঁজে সেখানে ওৎ পেতে থাকেন। বিকাশ কাউন্টার থেকে টাকা নেয়ার সময় পুলিশ ওই গৃহবধূর স্বামী সিরাজুলকে আটক করেন। কিন্তু তার স্ত্রী জাহানারা খাতুন পালিয়ে যায়।
সাতক্ষীরা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তাফিজুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, এ ঘটনায় যুবক সাকিলের বাবা বাদি হয়ে আটক সিরাজুল ও তার স্ত্রী জাহানারার বিরুদ্ধে মঙ্গলবার সকালে থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।

শ্যামনগর

যশোর

আশাশুনি


জলবায়ু পরিবর্তন