হাইকোর্ট বাস চাপায় নিহত দুই শিক্ষার্থীর পরিবারকে তাৎক্ষণিকভাবে ১০ লাখ টাকা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে


জুলাই ৩০ ২০১৮

ঢাকা ব্যুরো : বাস চাপায় শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের দুই শিক্ষার্থী নিহতের ঘটনায় তাদের পরিবারকে কেন দুই কোটি টাকা করে ক্ষতিপূরণ দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট। পাশাপাশি নিহত শিক্ষার্থী দিয়া আক্তার মিম ও আব্দুল করিমের পরিবারকে তাৎক্ষণিকভাবে পাঁচ লাখ টাকা করে দেওয়ারও নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। একসপ্তাহের মধ্যে জাবালে নূর পরিবহনের মালিক ও বিআরটিএ কর্তৃপক্ষকে এই টাকা দিতে বলা হয়েছে। সোমবার (৩০ জুলাই) এ সংক্রান্ত এক রিটের প্রাথমিক শুনানি শেষে বিচারপতি জে বি এম হাসান ও বিচারপতি মো. খায়রুল আলমের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এই আদেশ দেন।
রুলে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সচিব, সড়ক পরিবহন সচিব, পুলিশ মহাপরিদর্শক, ঢাকা মহানগর পুলিশ কমিশনার, বিআরটিএর চেয়ারম্যানসহ সংশ্লিষ্টদের জবাব দিতে বলা হয়েছে।
আদেশে বাসচাপায় আহতদের চিকিৎসার সব ব্যয় বহন করতে জাবালে নূর পরিবহনের মালিক ও বিআরটিএ কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।
আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজল। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল ফরিদা ইয়াসমিন।
পরে ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজল বলেন, ‘বিদ্যমান যে ট্রাফিক আইন আছে, তা যথাযথভাবে প্রয়োগের মাধ্যমে যাত্রীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে নির্দেশ কেন দেওয়া হবে না এবং শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের নিহত দুই শিক্ষার্থীর প্রত্যেক পরিবারকে ব্যাংক ইন্টারেস্টসহ দুই কোটি করে ক্ষতিপূরণ দেওয়ার নির্দেশ কেন দেওয়া হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট।’ তিনি আরও বলেন, ‘আদালত দুই পরিবারের তাৎক্ষণিক চাহিদা মেটানোর জন্য জাবালে নূর পরিবহনকে এক সপ্তাহের মধ্যে ৫ লাখ টাকা করে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন। আহত হয়ে যেসব শিক্ষার্থীরা হাসপাতালে আছেন তাদের চিকিৎসা নিশ্চিত করার জন্য চিকিৎসা খরচ বহন করার জন্য ওই পরিবহনকে নির্দেশ দিয়েছেন।’
চালকদের ড্রাইভিং লাইসেন্স কোন যোগ্যতার ভিত্তি দেওয়া হয় এবং সড়কে চলাচলকারীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে বিআরটিএ কী পদক্ষেপ নিয়েছে, সে বিষয়েও একটি প্রতিবেদন দাখিল করতে বিআরটিএ-কে নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।
মামলার পরবর্তী আদেশের জন্য ১২ আগস্ট দিন নির্ধারণ করা হয়েছে। ফলে বিআরটিএ-কে ওই দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে হবে। এছাড়া কুর্মিটোলার এ মর্মান্তিক দুর্ঘটনায় জাবালে নূর পরিবহনের দায় নির্ধারণে তদন্ত প্রতিবেদন ২ মাসের মধ্যে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) অ্যাকসিডেন্ট রিসার্চ ইনস্টিটিউটের পরিচালকের প্রতি নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এতে পুলিশ ও বিআরটিএ-কে সহযোগিতা করতে বলা হয়েছে।
এর আগে সোমবার (৩০ জুলাই) সকালে ওই দুর্ঘটনা সংক্রান্ত বেশ কিছু প্রতিবেদন আদালতের নজরে আনা হলে আইনজীবী রুহুল কুদ্দুস কাজলকে অ্যাফিডেবিট করে রিট দায়ের করার নির্দেশ দেন। পাশাপাশি রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবীদেরকে দুর্ঘটনায় আহতদের খোঁজ রাখতে নির্দেশ দেন। যার ফলে রুহুল কুদ্দুস কাজল নিহতদের পরিবারকে ক্ষতিপূরণের নির্দেশনা চেয়ে সোমবার দুপুরে (৩০ জুলাই) রিট দায়ের করেন। সে রিটের শুনানি নিয়ে আদালত রুলসহ আদেশ দেন।
প্রসঙ্গত, এর আগে গত ২৯ জুলাই রাজধানীর কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালের অদূরে বিমানবন্দর সড়কে (র‌্যাডিসন হোটেলের উল্টো দিকে) বাসচাপায় রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের দুই শিক্ষার্থী নিহত হন। বিমানবন্দর সড়কের বাম পাশে বাসের জন্য অপেক্ষা করার সময় জাবালে নূর পরিবহনের একটি বাস তাদের চাপা দিলে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন দিয়া আক্তার মিম ও আব্দুল করিম।
আরও বেশ কয়েকজন গুরুতর আহত হন। পথচারীরা সঙ্গে সঙ্গে আহতদের নিকটস্থ কুর্মিটোলা হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখান থেকে গুরুতর আহত কয়েকজনকে সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

শ্যামনগর

যশোর

আশাশুনি


জলবায়ু পরিবর্তন