কলারোয়া সীমান্তে পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে আটক ছয় বাংলাদেশীকে বিজিবির নিকট হস্তান্তর করলো বিএসএফ


জুন ২৪ ২০১৮

কলারোয়া প্রতিনিধি: কলারোয়া সীমান্তের বিপরীতে ভারতের তারালী বিএসএফ ক্যাম্পে আটক ছয় বাংলাদেশীকে পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে বিজিবির নিকট হস্তান্তর করেছে বিএসএফ সদস্যরা। রবিাবর দুপুরে উপজেলা কাকডাঙ্গা সীমান্তের মেইন পিলার ১৩/৩ এস এর ৩ আরবি’র নিকট বিজিবি-বিএসএফের এ পতাকা বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।
হস্তান্তরকৃতরা হলেন, নড়াইল জেলার কালিয়া উপজেলার বুড়িখালী গ্রামের মৃত মঞ্জুর মোল্লার স্ত্রী মনিরা বেগম (৩২), একই উপজেলার ছিলুমপুর গ্রামের সাকু মোল্লার স্ত্রী মিরা বেগম (৫০), সাতক্ষীরার মাছখোলা গ্রামের মৃত কিনুপদ সানার স্ত্রী উর্মিলা সানা (৬০), খুলনার তেরখাদা থানার কুমিরডাঙ্গা গ্রামের গাউস শেখের ছেলে আকাশ শেখ (২৮), তার স্ত্রী পাখি বিবি (২২) ও শিশু পুত্র রিফাত শেখ (২)।
কলারোয়ার কাকডাঙ্গা বিজিবি ক্যাম্পের নায়ক মনিরুল ইসলাম জানান, কয়েকদিন আগে ৬ বাংলাদেশী অবৈধ পথে ভারতে প্রবেশ করে। পরে তারা ভারতের তারালী এলাকায় ঘোরাঘুরি করার সময় টহলরত বিএসএফ সদস্যরা অবৈধ পথে ভারতে আসা নারী, পুরুষ ও শিশুসহ ছয় বাংলাদেশীকে আটক করে তারালী বিএসএফ ক্যাম্পে নিয়ে যায়। এ ঘটনার পর আটক বাংলাদেশীদের ফেরত দেয়ার জন্য বিএসএফ সদস্যরা কলারোয়া কাকডাঙ্গা বিজিবি ক্যাম্পে পত্র মারফত জানান।
তিনি আরো বলেন, তাদের পত্র পেয়ে রবিবার দুপুরে দিকে কাকডাঙ্গা সীমান্তে পতাকা বৈঠকের আহবান জানানো হয়। পরে বিএসএফ সদস্যরা রাজি হলে পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে বিএসএফ সদস্যদের নিকট আটক ছয় বাংলাদেশীকে বিজিবির নিকট হস্তান্তর করা হয়। পরে তাদেরকে কলারোয়া থানায় সোর্পদ করা হয়।
এ বিষয়ে কলারোয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বিপ্লব কুমার নাথ জানান, এ ঘটনায় বিজিবি বাদি হয়ে ৫ জনের নামে কলারোয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে। তিনি বলেন, আটককৃতদের রবিবার আদালতের মাধ্যমে জেলা কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।

শ্যামনগর

যশোর

আশাশুনি


জলবায়ু পরিবর্তন