নলতা-তারালী সড়কের বেহাল দশা


মে ৭ ২০১৮

কালিগঞ্জ প্রতিনিধি: কালিগঞ্জ উপজেলার নলতা-তারালী সড়কের কার্পেটিং উঠে খানা-খন্দে পরিণত হয়েছে। নলতা থেকে তারালী পর্যন্ত ৭ কিলোমিটার রাস্তার গুরুত্বপূর্ণ স্থানে কার্পেটিং উঠে ছোট-বড় গর্তে পরিণত হয়ে বর্ষার পানি জমে থাকায় জনসাধারণসহ স্কুল শিক্ষার্থীদের চলাচলে দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। নলতার ফারজানা হেল্থ কেয়ারের ডাঃ ফজলুর রহমান, ব্যবসায়ী জাহাঙ্গীর হোসেন, লাভলু, রফিকুল ইসলাম, আবু বক্কার, আঃ হামিদসহ স্থানীয়রা জানান, প্রায় ১ বছর আগে নলতা-তারালী সড়কটি কার্পেটিং করা হয়। কিন্তু সংশ্লিষ্ট ঠিকাদার কাজে অনিয়ম, দূর্ণীতি করায় কিছু দিন যেতে না যেতেই কার্পেটিং উঠে খানা খন্দে পরিণত হয়েছে। নলতায় প্রতি সপ্তাহে শনি ও মঙ্গলবার ২ দিন হাট বসে। আশাশুনি, উজিরপুর, তেতুলিয়া, রাজাপুর, ঘুূশুড়ী, তারালী, পাইকাড়া, বাথুয়াডাঙ্গা, ইন্দ্রনগর, কাজলাসহ আশে পাশের এলাকার ব্যবসায়ী ও হাজার হাজার ক্রেতা ও বিক্রেতাকে এই সড়ক দিয়ে হাটে আসতে হয়। এলাকাটি মৎস্য এলাকা হিসাবে চিহিৃত। এলাকার মৎস্য চাষিরা এ সড়ক দিয়ে তাদের সাদা মাছ ও সাদা সোনা নামে পরিচিত বাগদা চিংড়ী ও মাছের খাদ্য আনায়ন করে থাকে। তাছাড়াও নলতার স্কুল ও কলেজ উপজেলার ভিতরে ভালো সাফল্য অর্জন করায় দুরদুরান্তের শিক্ষার্থীরা স্কুল কলেজে পড়তে আসে। স্কুল ও কলেজে আসতে কোমল মতি শিক্ষার্থীদের চরম দূর্ভোগ পোহাতে হয়। উক্ত সড়কটি আসন্ন বর্ষা মৌসুমের আগেই সংস্কারের জন্য স্থানীয় জনপ্রতিনিধিসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সু-দৃষ্টি কামনা করেছেন ভুক্তোভোগী মহল।

শ্যামনগর

যশোর

আশাশুনি


জলবায়ু পরিবর্তন