চট্টগ্রাম হতে চুরি যাওয়া ৭লক্ষাধিক টাকার রড পাটকেলঘাটা থেকে উদ্ধার


মে ২৮ ২০১৮

পাটকেলঘাটা প্রতিনিধি: চট্টগ্রাম থেকে চুরি যাওয়া ৭লক্ষাধিক টাকার রড পাটকেলঘাটা থেকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। চুরির ২৩দিন পর পাটকেলঘাটার মেসার্স চৌধুরী ট্রেডার্স থেকে প্রায় ৭ লক্ষ টাকা মূল্যের ১৩ টন রড উদ্ধার করা হয়।
জানা যায়, গত ৩রা মে চট্রগ্রামের পূর্ব মাদারবাড়ী এলাকার দিদার পরিবহন ট্রান্সপোর্টের মাধ্যমে ১৩ টন ২০ মিলি জি পিএস রড নিয়ে ঢাকা মেট্রো ট-১৮-৪৯২৫ নাম্বারের ট্রাকটি ড্রাইভার জিহাদ সন্ধ্যায় পটুয়াখালীর উদ্দ্যেশে রওনা হয়। এর পর থেকে ২২ দিন ট্রাকটির কোন হদিস পাওয়া যায়নি। ট্রাকটির মালিক খুলনা টুটপাড়া এলাকার মিজানুর রহমান বলেন ড্রাইভার জিহাদ খুলনা ফুলবাড়ী এলাকার শহর আলীর ছেলে। জিহাদ চাঁদপুর থেকে ১৩ টন রড ছিনতাইকারী সদস্যদের যোগসাজশে অন্য একটি ট্রাকে তুলে দেয়। ২৩ দিনের মাথায় ডিবি পুলিশের সহায়তায় পাটকেলঘাটার মৃত আতিয়ার রহমান চৌধুরীর ছেলে আবু সাঈদ চৌধুরীর মেসার্স চৌধুরী ট্রেডার্স থেকে ১১টন ৩শ কেজি ২২ মিলি জি পি এস রড উদ্ধার করা হয়। চট্রগ্রামের মাদারবাড়ী এলাকার রড ব্যবসায়ী মাওঃ জেবল হোসেনের ছেলে মো. বেলাল হোসেন জানান, ৪ মে ট্রাক বোঝাই রডগুলো ছিনতাই হয়ে গেছে জানতে পেরে আমরা সকল ট্রাক শ্রমিক ইউনিয়নে খোঁজ খবর নেওয়ার জন্য বলি। সাথে সাথে ডিবি পুলিশের সহায়তা চাই। অবশেষে ২২দিনের মাথায় সাতক্ষীরা ডিবি পুলিশের মাধ্যমে পাটকেলঘাটায় রডগুলোর সন্ধান পায়। এসময় রড বেচাকেনার অপরাধে ডিবি পুলিশ মের্সাস চৌধূরী ট্রেডার্সের মালিক আবু সাঈদ, পাটকেলঘাটা আরেক গ্রীল ব্যবসায়ী আবুল কাশের পুত্র তহিদ হোসেন (৩০) ও কথিত ঠিকাদার মিজানুর রহমান কে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ কালে ছিনতাইয়ের ঘটনা জানতে পারে।
পরবর্তিতে তাদের স্বীকারোক্তি মোতাবেক দু’স্থান থেকে ১৩ টন রড উদ্ধার করা হয়। এর মধ্যে ১১টন ৩শ কেজি সাঈদ চৌধুরীর দোকান থেকে উদ্ধার হয়। অপর ১৭শ কেজি রড খুলনা ও চাঁদপুর থেকে উদ্ধার করা হয়। এ ব্যাপারে আবু সাঈদ চৌধুরী জানান, পাটকেলঘাটা পূবালী ব্যাংকের নিচের গ্রীল ব্যবসায়ী আবুল কাশেমের ছেলে তহিদ হোসেন আমার কাছে গত বৃহস্পতিবার ২০ মিলি জিপিএস রডগুলো কয়েকদিনের জন্য আমানত হিসেবে রাখার অনুরোধ জানালে আমি রেখে দেয়। এর পর সাতক্ষীরা ডিবি পুলিশ সদস্যরা ও ট্রাক মালিক মিজানুর রহমান, খুলনা বিভাগীয় ট্রাক শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আমির হোসেন, চট্রগ্রাম থেকে আগত বেলাল উদ্দীন আমার দোকানে হাজির হলে আমি চুরির বিষয় জানতে পারি। এবং রডগুলি তাদের কাছে হস্তান্তর করি।
এবিষয়ে পাটকেলঘাটা বাজার পরিচালনা কমিটির সাধারণ সম্পাদক নিজাম ভুঁইয়া বলেন, ঘটনাটি আমি শুনেছি। ঘটনার সত্যতা থাকলে আমাদের বাজারের ব্যবসায়ীদের সুনাম ক্ষুণœ করেছে আবু সাঈদ। সাতক্ষীরা ডিবি পুলিশের ওসি আলী আহম্মেদ হাসেমী বলেন, ছিনতাইকৃত রডগুলি উদ্ধার করে প্রকৃত মালিকের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।
পাটকেলঘাটা প্রতিনিধি: চট্টগ্রাম থেকে চুরি যাওয়া ৭লক্ষাধিক টাকার রড পাটকেলঘাটা থেকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। চুরির ২৩দিন পর পাটকেলঘাটার মেসার্স চৌধুরী ট্রেডার্স থেকে প্রায় ৭ লক্ষ টাকা মূল্যের ১৩ টন রড উদ্ধার করা হয়।
জানা যায়, গত ৩রা মে চট্রগ্রামের পূর্ব মাদারবাড়ী এলাকার দিদার পরিবহন ট্রান্সপোর্টের মাধ্যমে ১৩ টন ২০ মিলি জি পিএস রড নিয়ে ঢাকা মেট্রো ট-১৮-৪৯২৫ নাম্বারের ট্রাকটি ড্রাইভার জিহাদ সন্ধ্যায় পটুয়াখালীর উদ্দ্যেশে রওনা হয়। এর পর থেকে ২২ দিন ট্রাকটির কোন হদিস পাওয়া যায়নি। ট্রাকটির মালিক খুলনা টুটপাড়া এলাকার মিজানুর রহমান বলেন ড্রাইভার জিহাদ খুলনা ফুলবাড়ী এলাকার শহর আলীর ছেলে। জিহাদ চাঁদপুর থেকে ১৩ টন রড ছিনতাইকারী সদস্যদের যোগসাজশে অন্য একটি ট্রাকে তুলে দেয়। ২৩ দিনের মাথায় ডিবি পুলিশের সহায়তায় পাটকেলঘাটার মৃত আতিয়ার রহমান চৌধুরীর ছেলে আবু সাঈদ চৌধুরীর মেসার্স চৌধুরী ট্রেডার্স থেকে ১১টন ৩শ কেজি ২২ মিলি জি পি এস রড উদ্ধার করা হয়। চট্রগ্রামের মাদারবাড়ী এলাকার রড ব্যবসায়ী মাওঃ জেবল হোসেনের ছেলে মো. বেলাল হোসেন জানান, ৪ মে ট্রাক বোঝাই রডগুলো ছিনতাই হয়ে গেছে জানতে পেরে আমরা সকল ট্রাক শ্রমিক ইউনিয়নে খোঁজ খবর নেওয়ার জন্য বলি। সাথে সাথে ডিবি পুলিশের সহায়তা চাই। অবশেষে ২২দিনের মাথায় সাতক্ষীরা ডিবি পুলিশের মাধ্যমে পাটকেলঘাটায় রডগুলোর সন্ধান পায়। এসময় রড বেচাকেনার অপরাধে ডিবি পুলিশ মের্সাস চৌধূরী ট্রেডার্সের মালিক আবু সাঈদ, পাটকেলঘাটা আরেক গ্রীল ব্যবসায়ী আবুল কাশের পুত্র তহিদ হোসেন (৩০) ও কথিত ঠিকাদার মিজানুর রহমান কে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ কালে ছিনতাইয়ের ঘটনা জানতে পারে।
পরবর্তিতে তাদের স্বীকারোক্তি মোতাবেক দু’স্থান থেকে ১৩ টন রড উদ্ধার করা হয়। এর মধ্যে ১১টন ৩শ কেজি সাঈদ চৌধুরীর দোকান থেকে উদ্ধার হয়। অপর ১৭শ কেজি রড খুলনা ও চাঁদপুর থেকে উদ্ধার করা হয়। এ ব্যাপারে আবু সাঈদ চৌধুরী জানান, পাটকেলঘাটা পূবালী ব্যাংকের নিচের গ্রীল ব্যবসায়ী আবুল কাশেমের ছেলে তহিদ হোসেন আমার কাছে গত বৃহস্পতিবার ২০ মিলি জিপিএস রডগুলো কয়েকদিনের জন্য আমানত হিসেবে রাখার অনুরোধ জানালে আমি রেখে দেয়। এর পর সাতক্ষীরা ডিবি পুলিশ সদস্যরা ও ট্রাক মালিক মিজানুর রহমান, খুলনা বিভাগীয় ট্রাক শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আমির হোসেন, চট্রগ্রাম থেকে আগত বেলাল উদ্দীন আমার দোকানে হাজির হলে আমি চুরির বিষয় জানতে পারি। এবং রডগুলি তাদের কাছে হস্তান্তর করি।
এবিষয়ে পাটকেলঘাটা বাজার পরিচালনা কমিটির সাধারণ সম্পাদক নিজাম ভুঁইয়া বলেন, ঘটনাটি আমি শুনেছি। ঘটনার সত্যতা থাকলে আমাদের বাজারের ব্যবসায়ীদের সুনাম ক্ষুণœ করেছে আবু সাঈদ। সাতক্ষীরা ডিবি পুলিশের ওসি আলী আহম্মেদ হাসেমী বলেন, ছিনতাইকৃত রডগুলি উদ্ধার করে প্রকৃত মালিকের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

শ্যামনগর

যশোর

আশাশুনি


জলবায়ু পরিবর্তন