ফায়েক উজ্জামান দ্বিতীয় মেয়াদে খুবির ভিসি নিযুক্ত


জানুয়ারি ২৮ ২০১৭

এসবিনিউজ ডেস্ক : খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় আইন ১৯৯০ এর ১১(১)ধারা অনুযায়ী মহামান্য রাষ্ট্রপতি ও চ্যান্সেলর এ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ফায়েক উজ্জামান, ইসলামের ইতিহাস ও সংষ্কৃতি বিভাগ, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহীকে দ্বিতীয় মেয়াদে ভাইস-চ্যান্সেলর নিযুক্ত করেছেন। বুহস্পতিবার শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক প্রজ্ঞাপনে এ আদেশ জারি করা হয়। প্রজ্ঞাপনের এ কপি ফ্যাক্সযোগে অপরাহ্নে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে পেঁৗঁছে।

আজ ২৬ জানুয়ারি শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সহকারী সচিব বিশ্ববিদ্যালয় (স. বি. ১) আবদুস সাত্তার মিয়া স্বাক্ষরিত ঐ প্রজ্ঞাপনে (নং-শিম/শাঃ ১৮/৮ খুঃবিঃ-১/৯৭ (অংশ-১)/৩৬) খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর হিসেবে তাঁর নিয়োগের মেয়াদ ৪ (চার)বছর হবে বলে উল্লেখ করা হয়েছে। খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাসে তিনিই (প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ফায়েক উজ্জামান) প্রথম দ্বিতীয় মেয়াদে ভাইস-চ্যান্সেলর নিযুক্ত হলেন।

এর আগে প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ফায়েক উজ্জামান ২০১৩ সালের ১০ জানুয়ারি থেকে ২০১৭ সালের ৯ জানুয়ারি পর্যন্ত সাফল্যের সাথে ভাইস-চ্যান্সেলরের দায়িত্ব সম্পন্ন করেন। এরও আগে তিনি ২০১০ সালের ২৮ নভেম্বর  থেকে তিন বছরেরও অধিককাল খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো-ভাইস চ্যান্সেলর এবং ভাইস-চ্যান্সেলরের রুটিন দায়িত্ব পালন করেন। তিনি দ্বিতীয় মেয়াদে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর হিসেবে আগামী ৩০ জানুয়ারি দায়িত্বভার গ্রহণ করবেন বলে আশা করা হচ্ছে।

প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ফায়েক উজ্জামান-এর জন্ম ১৯৬৬ সালের ১ জানুয়ারি গোপালগঞ্জ জেলার মুকসুদপুর উপজেলার শ্রীনিবাসকাঠী গ্রামে। তিনি বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী জয়নাল আবেদীন (মরহুম) এবং বেগম রোকেয়া আবেদীনের দ্বিতীয় সন্তান। তিনি খুলনার দৌলতপুরে অবস্থিত সরকারী ব্রজলাল বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ থেকে ইসলামের ইতিহাস ও সংষ্কৃতি বিভাগ হতে অনার্স এবং রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের একই বিভাগ থেকে মাস্টার্স, এম ফিল ও পিএইচ.ডি ডিগ্রি অর্জন করেন। ১৯৯৪ সালে তিনি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যাপনায় যোগ দেন ও ২০০৭ সালে প্রফেসর পদ লাভ করেন। তাঁর বেশ কিছু গবেষণা প্রবন্ধ গুরুত্বপূর্ণ জার্ণালে প্রকাশিত হয়েছে। এছাড়াও তাঁর ‘ইরান-ইরাক বিরোধ ও সাম্প্রতিক যুদ্ধ’ ও ‘মুজিব নগর সরকার ও বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ’ শীর্ষক বই দু’টি বাংলা একাডেমি প্রকাশ করেছে। এছাড়া তিনি ‘History Society Culture: A.B.M. Husain Festschrift’ শীর্ষক সম্মাননা গ্রন্থটি যৌথভাবে সম্পাদনা করেন। প্রফেসর ফায়েক উজ্জামান রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেট, শিক্ষা পরিষদ ও ফ্যাকাল্টি সদস্য, আবাসিক শিক্ষক, শিক্ষক সমিতির যুগ্ন-সম্পাদক ও কার্যকরী পরিষদ সদস্যসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেট ও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা পরিষদ সদস্য হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেছেন। তিনি দেশে ও বিদেশে অনেক গুরুত্বপূর্ণ সেমিনারে যোগদান করেছেন। তিনি দেশের বিভিন্ন জাতীয় সংবাদপত্রে লেখালেখি করেন। প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ফায়েক উজ্জামান এর সহধর্মিনী প্রফেসর ড. মোবররা সিদ্দিকা বর্তমানে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ফোকলর বিভাগের শিক্ষক। তাঁরা দু’সন্তানের জনক-জননী। তাদের কন্যার নাম পূর্বাশা পৃথ্বী এবং পুত্রের নাম প্রাজ্ঞ পাবন।

শ্যামনগর

যশোর

আশাশুনি


জলবায়ু পরিবর্তন