সাতক্ষীরার আখড়াখোলায় আলাউদ্দিন বাহিনীর হামলা দোকান লুট করে তালা, নারী পুরুষসহ আহত-১০


জুন ১৫ ২০১৯


সাতক্ষীরা প্রতিনিধি ঃ সাতক্ষীরার আখড়াখোলায় আলাউদ্দিন বাহিনীর হামলায় নারী পুরুষসহ দশজন আহত হয়েছেন। হামলাকারীরা একটি দোকান লুটপাট করে ভাংচুরের পর দরজায় তালা ঝুলিয়ে দিয়েছে।
শুক্রবার দুপুর ১২ টার দিকে সদর উপজেলার আখড়াখোলা বাজারে এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ এ ঘটনায় বাহিনী প্রধান আলাউদ্দিন ও তার ছেলে গিয়াসউদ্দিন ডালিমকে আটক করেছে।
শুক্রবার বিকালে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের নারী পুরুষরা আহত অবস্থায় সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে এসে ঘটনার বিবরন দিয়ে বলেন, এগারোআনি গ্রামের আলাউদ্দিন বহিরাগত ভাড়াটিয়া এনে এই হামলা চালিয়েছে। তারা তালা ভেঙ্গে দোকানে ঢুকে আখ মাড়াইয়ের মেশিন, সাইকেল, ওষুধপত্র এবং অন্যান্য জিনিসপত্রসহ আসবাবপত্র ও টাকা লুট করে নেয়। এতে বাধা দিতে আসায় দোকান মালিকের বাড়ির সদস্যরা আহত হন। হামলাকারীরা নারীদের চুলের মুঠো ধরে টানা হেচড়া করে মারপিট করে। তারা পুরুষদের লাঠিসোটা দিয়ে পিটিয়ে আহত করে বের করে দেয়। আহতদের মধ্যে রয়েছেন, নিমাই সাধুখা, সন্তোষ সাধুখা, চায়না রানী, স্বপ্না সাধুখা, তুলশি, দেবব্রত, মিলন সাধুখা ও কার্তিক সাধুখা। তারা সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন।
আহত ব্যক্তিরা জানান, কিছুদিন আগে এগারোআনি গ্রামের আলাউদ্দিন আখড়াখোলার দুলাল সাধুখার ছেলে সুমন সাধুখাকে অপহরন করে। সুমনকে জিম্মি রেখে আলাউদ্দিনের নামে ১০ শতক জমি লিখে দেওয়ায় সুমনকে মুক্তি দেয় আলাউদ্দিন। আলাউদ্দিন এই দশ শতক জমির বাইরে নিকটস্থ শরিকদের আরও তিন শতক জমি জোর করে দখল করতে যেয়ে সাধুখা পরিবারের দোকান ও সংলগ্ন ঘরবাড়ি কেটে ছেঁটে ফেলে। এ ঘটনায় মারামারির এক পর্যায়ে পুলিশ ও স্থানীয়রা মিলিত হয়ে সালিশ করেন। সালিশ বিচারে আলাউদ্দিন প্রতিপক্ষের জমিতে যাবে না এবং দোকানঘর দখল করবে না বলে প্রতিশ্রুতি দেয়। এসব প্রতিশ্রুতি ভঙ্গ করে আলাউদ্দিন তার বাহিনী নিয়ে ফের সাধুকা পরিবারের জমি ও দোকান দখল চেষ্টায় তাদের মারধর করে। হামলায় আলাউদ্দিন বাহিনীর সাথে আরও ছিল বায়রন, লিটন , জাহাঙ্গির, সেলিম, সালমা ও রুবি ছাড়াও বহিরাগত সন্ত্রাসীরা।
সদর থানা পুলিশের এসআই তরিকুল ইসলাম জানিয়েছেন, আমরা আলাউদ্দিন ও তার ছেলেকে থানায় নিয়ে এসেছি। এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে

শ্যামনগর

যশোর

আশাশুনি


জলবায়ু পরিবর্তন