কৃষকদের প্রশিক্ষণের মাধ্যমে আরো বেশি দক্ষ করে গড়ে তুলতে হবে – ড. মো. আবদুর রৌফ


মে ৪ ২০১৯


নিজস্ব সংবাদ দাতা ঃ ‘শেখ হাসিনার নির্দেশ জলবায়ু সহিষ্ণু বাংলাদেশ’ এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে সাতক্ষীরায় বিনা উদ্ভাবিত লবণক্ততা সহিষ্ণু উচ্চ ফলনশীল বোরো ধানের জাত বিনা ধান-১০ এর সম্প্রসারণের লক্ষ্যে মাঠ দিবস অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার (০৪ ঠা মে) বিকালে সাতক্ষীরা সদরের ধুলিহর ইউনিয়নের কোমরপুর এলাকায় বাংলাদেশ পরমাণু কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট (বিনা) উপকেন্দ্রের বাস্তবায়নে, জলবায়ু পরিবর্তন ট্রাষ্ট ফান্ড (সিসিটিএফ)’র অর্থায়নে এবং কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের সহযোগিতায় বিনা উপকেন্দ্র সাতক্ষীরার বৈজ্ঞানিক ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আল আরাফাত তপুর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন কৃষি মন্ত্রণালয়ের (পিপিসি) অতিরিক্ত সচিব ড. মো. আবদুর রৌফ। প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন,‘বাংলাদেশ কৃষি প্রধান দেশ। কৃষির উন্নয়নে সরকার বিভিন্ন কর্মপরিকল্পনা হাতে নিয়েছে। কৃষির উন্নয়ন ঘটাতে কৃষকদের আধুনিক প্রযুক্তিতে চাষাবাদ করতে। কৃষকদের প্রশিক্ষণের মাধ্যমে আরো বেশি দক্ষ করে তুলতে হবে। লবণক্ততা সহিষ্ণু উচ্চ ফলনশীল বোরো ধানের জাত বিনা ধান-১০ অধিক ফলন দেয়। সেজন্য দিনদিন এধানের চাষ বাড়ছে।’
বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন উদ্ভিদ প্রজনন বিভাগ বিনা সিএসও ও বিভিাগীয় প্রধান ড. মির্জা মোফাজ্জল ইসলাম, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর খামার বাড়ি সাতক্ষীরা জেলা প্রশিক্ষণ কর্মকর্তা মো. নুরুল ইসলাম, ব্রি আঞ্চলিক কার্যালয় সাতক্ষীরা পিএসও ও প্রধান ড. মো. ইব্রহিম, সদর উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ মো. আমজাদ হোসেন, বিএডিসি সাতক্ষীরার উপরিচালক মো. নাজিমুদ্দিন, সিসিটিএফ’র প্রকল্প পরিচালক ড. মো. শহিদুল ইসলাম, পরিকল্পনা ও উন্নয়ন কোষ, বিনা ময়মনসিং এসএসও ইনচার্জ ড, মো. কামরুজ্জামান, বাংলাদেশ পরমাণু কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট (বিনা) উপকেন্দ্রের বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা মাসুম সরদার ও ফার্ম ম্যানেজার মো. তরিকুল ইসলাম প্রমুখ। সমগ্র অনুষ্ঠান সঝ্চালনা করেন পরিকল্পনা ও উন্নয়ন কোষ, বিনা ময়মনসিং এসএসও ইনচার্জ ড, মো. কামরুজ্জামান।

শ্যামনগর

যশোর

আশাশুনি


জলবায়ু পরিবর্তন