স্ত্রী হত্যাকারীদের শাস্তির দাবি জেলা ভূমিহীন সমিতির


নভেম্বর ৩০ ২০১৮


স্ত্রীকে হত্যার ঘটনা ভিন্নখাতে প্রবাহিত করতে স্বামী মিকাইল কর্তৃক মিথ্যা সংবাদ প্রকাশের প্রতিবাদ জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন সাতক্ষীরা জেলা ভূমিহীন সমিতির নেতৃবৃন্দ। শুক্রবার সাতক্ষীরা জেলা ভূমিহীন সমিতির সভাপতি কওছার আলী ও সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সামাদ স্বাক্ষরিত এক পত্রে নেতৃবৃন্দ বলেন, অসহায় খালেদার নাতনী জুলিয়া খাতুন নবম শ্রেণিতে পড়তো। তাকে বিয়ে করার জন্য বারবার চাপ দিতে থাকে সাতক্ষীরার আশাশুনি উপজেলার কাদাকাটি গ্রামের আবদুর রউফের ছেলে ঢাকাস্থ চীনা দূতাবাসকর্মী মিকাইল হোসেন। দুই বছর আগে মিকাইল জুলিয়াকে নানা কৌশলে বিয়ে করে। কিছুদিন পর মিকাইল গোপনে স্ত্রী জুলিয়াকে ঢাকায় নিয়ে যায়। সেখানে সে বিদেশি বায়ারদের প্রলুব্ধ করে জুলিয়াকে তাদের বেডপার্টনার হিসাবে ব্যবহার করতে শুরু করে। এর বিনিময়ে সে অনেক টাকা হাতিয়ে নিতে থাকে।
গত ২৯ এপ্রিল মিকাইল ফোন করে জানায় জুলিয়া আত্মহত্যা করেছে। তড়িঘড়ি করে তাকে দাফন করে সে। ঘটনার ৫দিন পর তার নানী খালেদা সাতক্ষীরা থেকে যেয়ে ঘটনাস্থলে গেলে তাকে চীনা দুতাবাসের নিরাপত্তারক্ষীরা জানান জুলিয়াকে কয়েকজন বিদেশি বায়ারদের হাতে তুলে দিয়ে তাদের শয্যাসঙ্গীনি করতো মিকাইল। এমন এক রাতেই দূতাবাসের কর্মকর্তা সানসুন ইউ ইউ জন এর সহযোগিতায় জুলিয়াকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে মেকাইল। এ সময় তার চিৎকারের শব্দও শুনতে পান দূতাবাসের নিরাপত্তারক্ষীরা। বিছানায় ধর্ষন ও হত্যার আলামত পাওয়া যায়। জুলিয়াকে ধর্ষন ও হত্যার ভিডিও ফুটেজসহ বিভিন্ন আলামত উত্তরা পশ্চিম থানার এসআই মাহমুদুল হাসানের কাছে জমা দেওয়া হয়। পরে তার কাছ থেকে রিপোর্ট নিতে গেলে নানী খালেদাসহ অন্যদের থানা থেকে বের করে দেন।
এরপরও ঘাতক মিকাইল পাঁচ লাখ টাকা নিয়ে বিষয়টি মিটমাট করে নিতে জুলিয়ার নানী খালেদা খাতুনের ওপর চাপ দিতে থাকে। না হলে আরও বিপদ হবে বলে হুমকি দেয়। এঘটনায় ন্যায় বিচারের দাবিতে অসহায় খালেদা খাতুন বিচারের দাবিতে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে একটি সংবাদ সম্মেলন করে। এরপর ওই মিকাইল হত্যার ঘটনা ভিন্নখাতে প্রবাহিত করতে জুলিয়ার মামা মিঠু ও নানী খালেদাকে জড়িয়ে একটি মিথ্যা, ভিত্তিহীন সংবাদ প্রকাশিত করে। এছাড়া এস আই মাহমুদুল হাসানকে দিয়ে জুলিয়ার মামা মিঠু এবং নানী খালেদা খাতুনকে মোবাইলের মাধ্যমে বিভিন্ন হুমকি ধামকি প্রদর্শন করায়। এঘটনায় অসহায় খালেদা খাতুন ভীতুসন্ত্রস্থ হয়ে পড়েছে। তারা ওই হত্যাকারী মিকাইল, সানসুন ইউ ইউ জন ও এস আই মাহমুদুল হাসানের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবিতে ঢাকার উত্তরা পশ্চিম থানা পুলিশের ডিসি এর আশুহস্তক্ষেপ কামনা করেন নেতৃবৃন্দ। প্রেস বিজ্ঞপ্তি

শ্যামনগর

যশোর

আশাশুনি


জলবায়ু পরিবর্তন