ডাক


সেপ্টেম্বর ৩০ ২০১৮

নয়ন আহমেদ

ডাক দিয়েছে ভোর;আলো কুড়োতে যাবো।
ডাক দিয়েছে রোদ;শুশ্রুষা বহন করতে যাবো।
ডাক দিয়েছে প্রদীপ্ত সূর্য;অন্ধকার পরাজিত করতে বের হবো।
ডাক দিয়েছে সবুজ পাতা;শান্তি ছড়িয়ে দিতে ছুটে যাবো।
আমি এখনই একটা অপরিহার্য পৃথিবীর পা-ুলিপি প্রস্তুত করতে বের হবো।

ডাক দিয়েছে ধানখেত।
ডাক দিয়েছে নদী।
ডাক দিয়েছে গোলাপ।
ডাক দিয়েছে রজনীগন্ধা।
আমি সমস্ত উচ্ছ্বাসের হৃৎপি- ভেদ করে ভালোবাসা ছড়াবো।

সাক্ষী প্রসারিত রোদ,
সাক্ষী বহমান নদী,
সাক্ষী গ্রীবা উঁচু করা প্রেম,
সাক্ষী উজ্জ্বল পার্থিবতা,
আমি মানুষের আশা ও আশ্বাসকে হৃদয়-জমিনে রোপন করতে যাবো।

যে আশায় জেগে ওঠে, আমি তাকে ভালোবাসি।
যে কল্যাণ কামনা করে, আমি তাকে প্রীতি নিবেদন করি।
যে কাঁধে বহন করে মানবতা, আমি তার স্তব করি।
কেননা, সত্য তাকে প্রেমের লাল চাঁদরে আবৃত করেছে।
সে সৈনিক হয়েছে;
সে জীবন বহন করতে প্রতিজ্ঞা করেছে।
সে সূর্যের সমান বয়সী হয়েছে।

ডাক দিয়েছে পোড়া রুটির মতো একটা পৃথিবী।
ডাক দিয়েছে একটা হাহাকার।
ডাক দিয়েছে একটা বিপন্ন বিনয়।
আমি আকাক্সক্ষার প্রতীক হবো।

মানুষের কাছে ছুটে যাবো এখনই।

আমি সূর্যের সমবয়সী।

শ্যামনগর

যশোর

আশাশুনি


জলবায়ু পরিবর্তন