ওয়ানডেতে চোখ সাকিবের


জুলাই ১৬ ২০১৮

ক্রীড়া ডেস্ক: উইন্ডিজে টেস্ট সিরিজে হোয়াইটওয়াশ হতে হলো বাংলাদেশকে। কিন্তু হতাশা নিয়ে বসে থাকার সময় নেই তাদের সামনে। আগামী রবিবার থেকে শুরু হচ্ছে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ। জ্যামাইকা টেস্ট ৩ দিনে শেষ হওয়ায় প্রথম ওয়ানডের আগে এক সপ্তাহ সময় পাচ্ছেন সাকিব আল হাসানরা। এই সময় কাজে লাগিয়ে দুই টেস্টের ভুলগুলো শুধরে নিয়ে ৫০ ওভারের ক্রিকেটে ভালো কিছু করতে চায় বাংলাদেশ।

শনিবার হোয়াইটওয়াশ হওয়ার পর সাকিব জানালেন তার হতাশার কথা। তবে আশার আলোও দেখালেন বাংলাদেশের টেস্ট অধিনায়ক, ‘টেস্ট সিরিজে যেমনটা চেয়েছিলাম, তেমন করে খেলতে পারিনি আমরা। এই মুহূর্তে ওয়ানডে ক্রিকেটের দিকে তাকিয়ে আমরা। কারণ সম্প্রতি ওয়ানডেতে আমরা ভালো করছি। তাই এ সিরিজ নিয়ে আমি আশাবাদী।’

প্রথম টেস্টে ইনিংস ও ২১৯ রানের হারের পর দ্বিতীয় ম্যাচে ১৬৬ রানে হেরেছে সফরকারীরা। সিরিজে খুব কঠিন সময় পার করতে হয়েছে স্বীকার করলেন সাকিব, ‘টেস্ট সিরিজ হতাশায় কেটেছে। আমরা জানতাম এই সিরিজ আমাদের জন্য কঠিন হবে। তবে এতটা কঠিন হবে ভাবতে পারিনি। বেশ কিছু জায়গা নিয়ে কাজ করতে হবে আমাদের।’

বিশেষ করে ব্যাটিং নিয়ে হতাশা লুকালেন না সাকিব, ‘ব্যাটিংয়ে আমরা আমাদের সেরাটা দিতে পারিনি। সবাই হতাশ করেছে। তবে বোলারদের পারফরম্যান্স, বিশেষ করে স্পিনাররা ছিল অসাধারণ।’

অধিনায়ক হিসেবে দ্বিতীয়বার দায়িত্ব নেওয়ার পর সাকিবের লক্ষ্য ছিল বিদেশের মাটিতে উন্নতির স্বাক্ষর রাখা। শুরুটা বাজে হলেও আশাবাদী বাঁহাতি অলরাউন্ডার, ‘আমরা ১৮ বছর ধরে টেস্ট খেলছি। কিন্তু দেশের বাইরে খুব একটা ভালো কখনোই করিনি। অনেক জায়গা আছে কাজ করার। কোচিং স্টাফ, বোর্ড, সিনিয়র ক্রিকেটার, সবাইকে সেসব জায়গায় কাজ করতে হবে।’

আগামী ২২ জুলাই ওয়ানডে সিরিজের আগে বৃহস্পতিবার ওয়েস্ট ইন্ডিজের ভাইস চ্যান্সেলর’স একাদশের বিপক্ষে একটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে লাল-সবুজ দল। ওয়ানডে সিরিজ শেষে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজও খেলবে দুই দল।ওেওও
এখন ওয়ানডের দিকে তাকিয়ে সাকিব
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত: ১৯:৩০, জুলাই ১৫, ২০১৮ |সর্বশেষ আপডেট: ১৯:৪১, জুলাই ১৫, ২০১৮ 220

ওয়েস্ট ইন্ডিজে টেস্ট সিরিজে হোয়াইটওয়াশ হতে হলো বাংলাদেশকে। কিন্তু হতাশা নিয়ে বসে থাকার সময় নেই তাদের সামনে। আগামী রবিবার থেকে শুরু হচ্ছে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ। জ্যামাইকা টেস্ট ৩ দিনে শেষ হওয়ায় প্রথম ওয়ানডের আগে এক সপ্তাহ সময় পাচ্ছেন সাকিব আল হাসানরা। এই সময় কাজে লাগিয়ে দুই টেস্টের ভুলগুলো শুধরে নিয়ে ৫০ ওভারের ক্রিকেটে ভালো কিছু করতে চায় বাংলাদেশ।

শনিবার হোয়াইটওয়াশ হওয়ার পর সাকিব জানালেন তার হতাশার কথা। তবে আশার আলোও দেখালেন বাংলাদেশের টেস্ট অধিনায়ক, ‘টেস্ট সিরিজে যেমনটা চেয়েছিলাম, তেমন করে খেলতে পারিনি আমরা। এই মুহূর্তে ওয়ানডে ক্রিকেটের দিকে তাকিয়ে আমরা। কারণ সম্প্রতি ওয়ানডেতে আমরা ভালো করছি। তাই এ সিরিজ নিয়ে আমি আশাবাদী।’

প্রথম টেস্টে ইনিংস ও ২১৯ রানের হারের পর দ্বিতীয় ম্যাচে ১৬৬ রানে হেরেছে সফরকারীরা। সিরিজে খুব কঠিন সময় পার করতে হয়েছে স্বীকার করলেন সাকিব, ‘টেস্ট সিরিজ হতাশায় কেটেছে। আমরা জানতাম এই সিরিজ আমাদের জন্য কঠিন হবে। তবে এতটা কঠিন হবে ভাবতে পারিনি। বেশ কিছু জায়গা নিয়ে কাজ করতে হবে আমাদের।’

বিশেষ করে ব্যাটিং নিয়ে হতাশা লুকালেন না সাকিব, ‘ব্যাটিংয়ে আমরা আমাদের সেরাটা দিতে পারিনি। সবাই হতাশ করেছে। তবে বোলারদের পারফরম্যান্স, বিশেষ করে স্পিনাররা ছিল অসাধারণ।’

অধিনায়ক হিসেবে দ্বিতীয়বার দায়িত্ব নেওয়ার পর সাকিবের লক্ষ্য ছিল বিদেশের মাটিতে উন্নতির স্বাক্ষর রাখা। শুরুটা বাজে হলেও আশাবাদী বাঁহাতি অলরাউন্ডার, ‘আমরা ১৮ বছর ধরে টেস্ট খেলছি। কিন্তু দেশের বাইরে খুব একটা ভালো কখনোই করিনি। অনেক জায়গা আছে কাজ করার। কোচিং স্টাফ, বোর্ড, সিনিয়র ক্রিকেটার, সবাইকে সেসব জায়গায় কাজ করতে হবে।’

আগামী ২২ জুলাই ওয়ানডে সিরিজের আগে বৃহস্পতিবার ওয়েস্ট ইন্ডিজের ভাইস চ্যান্সেলর’স একাদশের বিপক্ষে একটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে লাল-সবুজ দল। ওয়ানডে সিরিজ শেষে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজও খেলবে দুই দল।

শ্যামনগর

যশোর

আশাশুনি


জলবায়ু পরিবর্তন