আশাশুনিতে পনি উন্নয়ন বোর্ডের গাফিলতিতে কোটি টাকা রাজস্ব হারাতে বসেছে সরকার


জুন ২২ ২০১৮

সংবাদ দাতা, আশাশুনি: আশাশুনিতে পনি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তাদের অবহেলায় সরকার কোটি টাকা রাজস্ব হারাতে বসেছে। খাঁ খাঁ করছে উপজেলার অধিকাংশ নদ নদী আর এ সকল নদ নদীতে চরভরাটে জমির উপর চলছে প্রভাব শালীদের জবর দখলের মহা উৎসব ।

বিভিন্ন এলাকা ঘুরে ও স্থানীয়দের ভাষ্য অনুযায়ী জনাগেছে এ সকল নদ নদীতে এক সময় খরস্রোত নদীগুলিতে পাল তুলে নৌকা চলত,স্টিমার ছাড়াও স^াধিনতা যুদ্ধে পাক সেনাদের গানবোর্ড নিয়মিত টহল দিত। প্রতি বছর বিভিন্ন যায়গায় গ্রাম বাংলার সেই ঐহ্যিবাহী নৌকা বাইচ ্ এ সমস্ত নদীতে প্রতিযোগিতা হত। আজ সেই সমস্ত নদে ক্রমাগত পলি জমে ভরাট হয়ে এই সকল জমি এখন সোনার চেয়েও দামী। এ কারনে উপজেলার ১১টি ইউনিয়নের অধিকাংশ মানুষ প্রভাব শালীদের কারনে ঝুকির মধ্যে রয়েছে। মাইলের পর মাইল জেগে উঠা নদীর চর এখন অবৈধ দখলবাজদের দখলে নিয়ে নিজেরাই বসত ভিটা তৈরী করে গ্রাম ছেড়ে পানি উন্নয়ন বোর্ডের চর ভরাটে জমির উপর আবাসন বহুতল ভবন নির্মান করে পরিবার পরিজন নিয়ে বসবাস করছে।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের ঐ সমস্ত অধিকাংশ জায়গা হলেও সেটা নিয়ে তাদের কোন মাথা ব্যাথা নাই। যে কারনে সরকার কোটি কোটি টাকা রাজস্ব হারাতে বসেছে। উপজেলার বিভিন্ন পোল্ডারের যায়গা অবৈধ দখলবাজরা দখল করে আবাসন ও মৎস্য ঘের বানিয়ে বহাল তবিয়াতে চালিয়ে যাচ্ছেন। আর এই সুুুযোগে পানি উন্নয়ন বোর্ডের অধিকাংশ কর্মকর্তা কর্মচারীরা অবৈধ দখলবাজদের নিকট হতে হাতিয়ে নিচ্ছে মোটা অংকের টাকা নিচ্ছে তারা। গোয়াল ঘাসিয়া,কাকশিয়ালী,ইছামতি বয়ে দক্ষিনে সুন্দর বন দিয়ে বঙ্গবসাগরে মিলিত হয়েছে এ সকল নদী। জেলার পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তরা এ সকল বিষয় উদ্যোগ না নেওয়ায় একের পর এক অবৈধ দখল বাজরা দখল রাজত্ব কায়েম করে চলেছে বলে উপজেলাবাসীরা জানান। সাতক্ষীরা পানি উন্নয়ন বোর্ডে (পাউবো) এসি ল্যান্ড অফিস ও জেলা প্রশাসন থেকে কোন অনুমোদন নেওয়া ছাড়া বছরের পর বছর অবৈধভাবে কোন রাজস্ব ছাড়াই দখলের মহা উৎসব চালিযে যাচ্ছে। এতে করে এক দিকে যে ভূমিহীনরা গৃহহীন হচ্ছে অন্য দিকে প্রতি বছরে কোটি কোটি টাকা রাজস্ব থেকে বঞ্চিত হচ্ছে সরকার। আর এই সকল দখল বাজ লুটেরা সরকারী দলের নাম ভাঙ্গিয়ে ও প্রধান মন্ত্রীর প্রতিশ্র“তি ভঙ্গকরে অবৈধ কাজগুলি চলিয়ে যাচ্ছে।

বর্তমান সময়ে পানি উন্নয়ন বোর্ডের অধিকাংশ যায়গায় পাকা স্থাপনা নির্মান করে হাজার হাজার মানুষ বসবাস করলেও পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তারা দেখেও না দেখার ভান করে দিন পার করছে। পানি উন্নয়ন বোর্ডের এই দুর্নিতিবাজ কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য সরকারের দায়িত্বশীল কর্মকর্তাদের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন আশাশুনি উপজেলার সর্বস্তরের জন সাধারন।

শ্যামনগর

যশোর

আশাশুনি


জলবায়ু পরিবর্তন