কুল্যায় মামলা করায় প্রতিপক্ষের হামলা : আহত-৩


জুন ৪ ২০১৮

আশাশুনি ব্যুরো: আশাশুনি উপজেলার কুল্যা গ্রামে জমিজমার বিরোধ নিয়ে প্রতিপক্ষের হামলায় আহত পরিবার থানায় মামলা করায় পুনরায় হামলা করে ৩ জনকে আহত করা হয়েছে। নির্যাতিত পরিবারটি নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে।
অভিযোগে প্রকাশ, কুল্যার মোড় এলাকার মৃত কেরামত আলীর পুত্র মুনছুর গাজী দিং এর সাথে একই গ্রামের আজিজ শাহাজীর শ্যালিকা বিলকিস এর জমিজমা দিয়ে বিরোধ আছে। এরই জের ধরে প্রতিপক্ষ মুনছুর, তার স্ত্রী মোমেনা ও পুত্র রানা তাদেরকে নানা ভাবে খুন জখমের হুমকী ধামকী ও ভয়ভীতি প্রদর্শন করে আসছিলেন। এব্যাপারে আজিজ শাহাজী বাদী হয়ে থানায় ১১/০২/১৪ তাং ৪৩৮ নং জিডি করেন। এরপর থেকে বাদী পক্ষকে স্বাভাবিক জীবন যাপনে চরম বিপত্তি সৃষ্টি করা হয়। এরই ধারাবাহিকতায় ১৮/৪/১৮ তাং তাদের বাড়িতে গিয়ে বিলকিস ও তার কন্যা বীথিকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজের এক পর্যায়ে মারপিট করে। ঠেকাতে গেলে শিল্পীকেও মারপিট করে আঙ্গুল ভাঙ্গা ও ফোলা জখম, স্বর্ণের চেইন ছিনতাই ও শ্লীলতাহানি ঘটান হয়। এব্যাপারে শিল্পী বাদী হয়ে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। কিন্তু বিবাদীরা তাতেও দমেনি বরং চরম ভাবে প্রতিশোধ নিতে চেষ্টা চালাতে থাকে। ডিবি পুলিশ ও থানা পুলিশ এনে মাদক দ্রব্য নিয়ে ধরিয়ে দেওয়ার আস্ফালন করে, এমনকি একদিন ডিবি পুলিশ আনিয়ে বাড়ি সার্চিং করানো হয়েছে বলে তারা দাবী করেন। কিন্তু তাদের বাড়িতে কিছু না পেয়ে পুলিশ চলে গেলেও বিবাদীরা ক্ষান্ত হয়নি। গত ২৯ মে পুনরায় তারা এবং তাদের সহযোগি মনি, শামীম, মইরদ্দীন তাদের উপর হামলা চালিয়ে কুলছুম, বিলিকিস ও শেখ আলমগীরকে বেদম মারপিট করে। গুরুতর আহত কুলসুমকে আশাশুনি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এরপর থেকে পরিবারটি বাইরে বের হতে নিরাপত্তহীনতা ভোগ করছে। এব্যাপারে আইন প্রয়োগকারী সংস্থাসহ উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করা হয়েছে।

শ্যামনগর

যশোর

আশাশুনি


জলবায়ু পরিবর্তন