মৌলবাদকে পরাজিত করে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গড়ে তুলতে হবে


মে ২০ ২০১৮

নিজস্ব প্রতিবেদক: ‘মৌলবাদকে পরাজিত করে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় অসাম্প্রদায়িক জনগণতান্ত্রিক বাংলাদেশ গড়ে তুলতে হবে। যে বাংলাদেশে সামাজিক ন্যায্যতা-সমতা প্রতিষ্ঠিত হবে।’ গত শুক্রবার সকালে জেলা শিল্পকলা একডেমি মিলনায়তনে বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির কর্মশালায় প্রধান বক্তার বক্তব্যে এসব কথা বলেন বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির পলিট ব্যুরোর সদস্য কমরেড প্রফেসর ড. সুশান্ত দাস।
অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সাতক্ষীরা জেলা কমিটির সভাপতি ও পলিট ব্যুরোর সদস্য সংসদ সদস্য কমরেড এ্যাডভোকেট মুস্তফা লুৎফুল্লাহ। বিশেষ বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পার্টির পলিট ব্যুরোর অন্যতম সদস্য কমরেড নূর আহম্মেদ বকুল।
সভায় বক্তারা বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি ঘোষিত ২১ দফা আশু কর্মসূচির ভিত্তিতে সামাজিক ন্যায্যতা-সমতা প্রতিষ্ঠাসহ মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় অসাম্প্রদায়িক জনগণতান্ত্রিক আধুনিক বাংলাদেশ গড়ে তুলতেÑখাদ্য নিরাপত্তা অর্জন ও দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণ, কর্মসংস্থান, দারিদ্র বিমোচন ও মর্যাদাপূর্ণ জীবন নিশ্চিত করা, আধনিক যোগাযোগ ব্যাবস্থা ও ভৌত অবকাঠামোগত উন্নয়ন, জবাবদিহিতাপূর্ণ আধুনিক প্রযুক্তি নির্ভর বিদ্যুৎ ব্যবস্থাপনা ও নবায়নযোগ্য জ্বালানি ব্যবস্থাপনা গড়ে তোলা, সুষম উন্নয়নে নগরায়ন ও গ্রাম উন্নয়ন, আদিবাসী ও প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর সামাজিক সুরক্ষা নিশ্চিতকরণ, মুক্তিযুদ্ধের চেতনার ভিত্তিতে শিল্প, সাহিত্য, সংস্কৃতি ও জাতিসত্ত্বার বিকাশ, বিচার বিভাগের স্বাধীনতা ও আইনের শাসন, ক্ষমতার গণতান্ত্রিক বিকেন্দ্রীকরণ, স্থানীয় সরকার শক্তিশালীকরণ, নারীর অধিকার, ক্ষমতায়ন ও জেন্ডার সমতা, জনবান্ধব আইনশৃঙ্খলা বাহিনী, গণমাধ্যমের স্বাধীনতা ও বাধাহীন তথ্য প্রবাহ নিশ্চিতসহ বিভিন্ন দাবি আদায়ে পার্টির কর্মীদের করণীয় সম্পর্কে গঠনমূলক বক্তব্য রাখেন।
কর্মশালায় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক উপাধ্যক্ষ মোহিবুল্লাহ মোড়ল, সম্পাদকম-লীর সদস্য যথাক্রমে অধ্যাপক সাবীর হোসেন, এড. ফাহিমুল হক কিসলু, উপাধ্যক্ষ ময়নুল হাসান, সদস্য যথাক্রমে মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রউফ, অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম সরদার, স্বপন কুমার শীল, আব্দুল জলিল মোড়ল, অধ্যাপক পাল সুভাশীষ, নাসরিন খান লিপি, মফিজুল হক জাহাঙ্গীর, নির্মল মন্ডল, ইঞ্জিনিয়ার আবেদুর রহমান প্রমুখ।

শ্যামনগর

যশোর

আশাশুনি


জলবায়ু পরিবর্তন