সর্বসাধারণের জন্য সব সময় আমার দার খোলা-জেলা প্রশাসক


এপ্রিল ২৩ ২০১৮

দেবহাটা প্রতিনিধি: ‘সরকারি প্রতিষ্ঠানে সেবা নিতে এসে কেউ যেনো অযাথা হয়রানির শিকার না হয় সে দিকে সব সময় খেয়াল রাখা হচ্ছে। জনগনকে সেবা দেওয়ার জন্য সরকার আমাদের নিয়োগ করে রেখেছেন। তাই কারোর অসাহয়ত্বের সুযোগ নিয়ে আর্থিক লেনদেন কিংবা কোন প্রকার অপরাধের আশ্রায় নিলে তার বিরুদ্ধে ব্যাবস্থা গ্রহণ করা হবে।’ দেবহাটায় এক মতবিনিময় সভায় এসব কথা বলেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ ইফতেখার হোসেন। তিনি বলেন, ‘সরকারের স্বপ্ন ডিজিটাল সোনার বাংলা গড়া। আর আমাদের দায়িত্ব উন্নয়ন বাস্তবায়ন করা। আমাদের দায়িত্বের স্থানগুলোতে যত বেশি সেবা দিতে স্বক্ষম হব তত তাড়াতাড়ি উন্নত দেশে রুপান্তিত হতে পারব। সর্বসাধরণের জন্য আমার দার সব সময় খোলা থাকবে। আপনাদের প্রয়োজনমত আমাকে সরকারের উন্নয়ন বাস্তবায়নে পাশে পাবেন।’
সোমবার অনুষ্ঠিত এ মতবিনিময় সভায় সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হাফিজ-আল-আসাদ। উপস্থিত ছিলেন দেবহাটা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কাজী কামাল হোসন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মাহবুব আলম খোকন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আফরোজা পারভীন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও নওয়াপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান মুজিবর রহমান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও সখিপুর ইউপি চেয়ারম্যান শেখ ফারুক হোসেন রতন, পারুলিয়া ইউপি চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম, দেবহাটা সদর ইউপি চেয়ারম্যান আবু বকর গাজী, দেবহাটা বিজিবি ক্যাম্পের নায়েক সুবেদার জিন্নাত আলী, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের ডেপুটি কমান্ডার ইয়াসিন আলী, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের সভাপতি আবু রায়হান তিতু, দেবহাটা প্রেসক্লাবের সভাপতি আব্দুল ওহাব, সাংগঠনিক সম্পাদক মিজানুর রহমান, দেবহাটা রিপোর্টার্স ক্লাবের সভাপতি মীর খায়রুল আলম, সখিপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি সরদার আমজাদ হোসেন প্রমুখ।
মতবিনিময় সভায় বক্তাদের দাবির ভিত্তিতে জেলা প্রশাসক ইফতেখার হোসেন বলেন, কোন কৃষি খাস জমি বন্দোবস্ত দেওয়া হবে না। নষ্ট রাস্তা সংস্কারের জন্য অধিকাংশ রাস্তার টেন্ডার হয়েছে। খুব তাড়াতাড়ি কাজ শুরু হবে। তিনি আগামীতে বালু মহলের ইজারা বাতিল করে নদীর বাধ ভাঙ্গন রক্ষা এবং স্থানীয় রাস্তা নষ্ট রোধে ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস প্রদান করেন। এছাড়া রাস্তার পাশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সামনে স্পিড ব্রেকার, পারুলিয়া ইউনিনের পোষ্ট অফিস নির্মাণের কাজ সমাপ্ত, দেবহাটা প্রেসক্লাব সংস্কার, ম্যানগ্রোভ বিনোদন কেন্দ্রে রেস্ট হাউস নির্মাণে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে নির্দেশ দেন জেলা প্রশাসক। একই সাথে জলাবদ্ধতা নিরাসনে এবং কৃষি, মৎস্য চাষের জন্য জোয়ার-ভাটা স্বাভাবিক রাখতে বিশেষ খালগুলো খননের জন্য সংশ্লিষ্ট মন্ত্রাণালয়ে নথি প্রেরণ করা হবে বলেও জানান জেলা প্রশাসক। তিনি সরকারের উন্নয়নকে বাস্তবায়ণ করতে সকলের সহযোগীতা কামনা করেন।
এসময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা মৎস্য অফিসার বদরুজ্জামান, এলজিইডি অফিসার মোমিনুল ইসলাম, উপজেলা সাব-রেজিস্টার পার্থ প্রতিম মুখার্জ্জি, উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আব্দুর লতিফ, উপজেলা প্রাণিসম্পদ অফিসার ডা. বিষ্ণুপদ বিশ্বাস, সমাজসেবা কর্মকর্তা অধির কুমার গাইন, মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আব্দুল হাই, শিক্ষা অফিসার প্রণব কুমার মল্লিক, যুব উন্নয়ন অফিসার ইসমোত আরা বেগম, বিআরডিবি অফিসার ইসরাইল হোসেন, পল্লী দারিদ্র বিমোচন অফিসার অসিত বরণ রায়, সহকারী শিক্ষা অফিসার সোহাগ হোসেন, প্রকল্প বাস্তবায়ণ কর্মকর্তা শাহরিয়ার মাহফুজ রঞ্জু, কুলিয়া ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান বিকাশ সরকার, খানবাহাদুর আহছানউল্লাহ কলেজের অধ্যক্ষ রিয়াজুল ইসলাম, হাজী কেয়ামউদ্দীন মেমোরিয়াল কলেজের অধ্যক্ষ আবুল কালাম, দেবহাটা কলেজের অধ্যক্ষ একেএম আনিসউজ্জামান, আইডিয়ালের নির্বাহী পরিচালক ডা. নজরুল ইসলাম, মডেল হাই স্কুলের প্রধান শিক্ষক মদন মোহন পালসহ বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারি, শিক্ষার্থী ও ন্যাশনাল সার্ভিসের কর্মীরা।

শ্যামনগর

যশোর

আশাশুনি


জলবায়ু পরিবর্তন