ভোমরা হ্যান্ডলিং শ্রমিক ইউনিয়নের নির্বাচন প্রকৃত শ্রমিকদের ভোটার তালিকা থেকে বাদ দেওয়ার অভিযোগ


এপ্রিল ২৩ ২০১৮

নিজস্ব প্রতিবেদক: ভোমরা হ্যা-লিং শ্রমিক ইউনিয়ন (রেজিঃ নং ১৭২২ এবং ১৯৬৪) এর নির্বাচনে পরাজিত হওয়ার আশংকায় নীল নকশা করে আবারো ক্ষমতায় যাওয়ার পায়তারার অভিযোগ উঠেছে। ১৭২২ এর আবিদ হোসেন ও ১৯৬৪ এর সাইফুল ইসলাম এ পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতে ইতোমধ্যে প্রকৃত শ্রমিকদের সদস্যপদ বাতিল করে অশ্রমিকদের সদস্যভুক্তি করেছেন। অথচ বন্দরে নিয়মিত শ্রমিকের কাজ করে, মাসিক চাঁদা দিয়েও সদস্য হতে পারেননি অনেক প্রকৃত শ্রমিক। সোমবার দুপুরে শ্রমিক ইউনিয়নের সামনে জড়ো হয়ে সাংবাদিকদের কাছে এধরনের অভিযোগ করেন শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সদস্যরা।
শ্রমিকরা বলেন, ইউনিয়ন দুটি দীর্ঘদিন জোরপূর্বক দখল করে রেখেছিলো পূর্বের কমিটি। অনেক জল্পনা কল্পনার পর আগামী ১১ মে নির্বাচনে তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছে। নির্বাচনের নিয়ম অনুযায়ী দায়িত্বে থাকা নেতৃবৃন্দের ভোটার তালিকা প্রদান করবেন। সে অনুযায়ী নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনে পরাজিত নিশ্চিত উপলদ্ধি করতে পেরে পূর্বের (১৭২২)কমিটির সাধারণ সম্পাদক আবিদ হোসেন ও (১৯৬৪) অর্থ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম বিভিন্ন এলাকার দোকানদার এবং শ্রমিকের কাজ করে এমন ব্যক্তিদের তালিকা ভুক্ত করেছেন। অন্যদিকে বন্দরে যারা সারাদিন শ্রমিকের কাজ করে যাচ্ছেন তাদের সদস্যভুক্তি করা তো দূরের কথা গত নির্বাচনে যারা ভোট দিয়েছিলো এমন অনেক সদস্যদের তালিকায় নাম নেই। এদের মধ্যে আবুল হোসেন, আলমগীর হোসেন, মহিদুল ইসলাম, ইউসুফ আলী ইউনিয়ন প্রতিষ্ঠা লগ্ন থেকে সদস্য ছিলো। কিন্তু এ নির্বাচনে আবিদ হোসেনের বিপক্ষের প্রার্থীর সাথে থাকায় তাদের নাম তালিকাভুক্ত করা হয়নি। এছাড়া আব্দুল আলিম নামের একজন শ্রমিক বিগত ২০১৩ সাল থেকে শ্রমিকদের কাজ করে যাচ্ছেন তাকে সদস্যপদ দেওয়ার জন্য ভর্তি ফিও নেওয়া হয়েছে কিন্তু তার সদস্যপদ দেওয়া হয়নি।
এঘটনায় সাবেক সাধারণ সম্পাদক আবিদ হোসেন শ্রমিকদের নাম বাদ যাওয়ার কথা স্বীকার করেই বলেন, দু চারটি নাম বাদ যেতেই পারে। তবে এটা ইচ্ছাকৃত ভাবে বাদ দেওয়া হয়নি। এছাড়া যারা পূর্বে শ্রমিক ছিলো তাদের নাম তো বাদ যাবেই। দোকানদারদের সদস্যভুক্তির বিষয়ে তিনি বলেন এটা হতে পারে। অনেকেই দোকানদারির পাশাপাশি আমাদের সদস্য রয়েছেন।
এ বিষয়ে প্রধান নির্বাচন কমিশনার চেয়ারম্যান ইসরাঈল গাজী বলেন, স্বচ্ছভাবেই এবারের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। যাদের নাম বাদ পড়েছে তারা আমাদের কাছে অভিযোগ দিলে আমরা দ্রুত ব্যবস্থা নেব। বিশেষ করে পুরাতন সদস্য যদি বাদ পড়ে থাকে তাদের পূর্বের নাম্বার টা জানালে আমরা কোন শর্ত ছাড়াই সদস্যভুক্ত করবো।

শ্যামনগর

যশোর

আশাশুনি


জলবায়ু পরিবর্তন