বিভিন্ন কৃষি ব্লকে বোরো ধানের পারচিং উৎসব অনুষ্ঠিত


মার্চ ১০ ২০১৮

নিজস্ব প্রতিনিধি: সারা দেশে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উদ্যোগে বোরো ধানের পারচিং উৎসব অনুষ্ঠিত হচ্ছে। তারই ধারাবাহিকতায় সাতক্ষীরার বিভিন্ন অঞ্চলে বোরো ধানের পারচিং উৎসব অনুষ্ঠিত হয়েছে।
ঝাউডাঙ্গা: বৃহস্পতিবার সকালে ঝাউডাঙ্গা ইউনিয়নের মাধবকাটি ব্লকে উপসহকারী কৃষি অফিসার কিরণ¥য় সরকার মাধবকাটি এলাকার কৃষকদের নিয়ে বোরো ধানের ক্ষেতে ডাল পুতে পারচিং উৎসবের উদ্বোধন করেন। কৃষি জমিতে কীট নাশকের ব্যবহার কমানোর জন্য কৃষকদের নিয়ে আয়োজন পারচিং পদ্ধতি সকল কৃষককে জানতে এবং কৃষকদের মাঝে ছড়িয়ে দিতে এই পারচিং পর্দ্ধতির মূল লক্ষ্য। জমিতে ধান রোপনের পর গাছের ডালপালা পুঁতে দিয়ে পোকা খেকো পাখির বসার ব্যবস্থা করলে পাখি ধানের পোকা ভক্ষণ করে। বিষমুক্ত খাদ্য শস্য উৎপাদনে পারচিং উৎসব অগ্রণী ভূমিকা রাখবে।

পারচিং উৎসবে উপস্থিত ছিলেন ইউপি সদস্য অপর্ণা রাণী, ব্লকের কৃষক হাবিবুল্লাহ, মনিরুল ইসলাম, মতলুব সরদার, মোস্তফা সরদার, সফিকুজ্জামান, মহসীন সরদার। অপরদিকে ঝাউডাঙ্গা এলাকার ওয়ারিয়া ব্লকে উপসহকারী কৃষি অফিসার শেখ হাসান রেজা কৃষকদের নিয়ে পারচিং উৎসবের উদ্বোধন করেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন প্রভাষক হাসান মাহমুদ, ইউপি সদস্য আব্দুল মালেক, কৃষক মফিজুল ইসলাম, শাহানারা প্রমুখ। অন্যদিকে ঝাউডাঙ্গা ব্লকে উপসহকারী কৃষি অফিসার মরিয়ম খাতুন ঐ ব্লকের কৃষকদের নিয়ে পারচিং উৎসবের উদ্বোধন করেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন ইউপি সদস্য রফিকুল ইসলাম, কৃষক মো. আব্দুল খালেক, আশরাফ আলী, শাহাদাত, আব্দুর রশিদ, ও মফিজুল ইসলাম। সাতক্ষীরা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উদ্যোগে বোরো ধানের পারচিং উৎসবে ঐ এলাকার শত শত কৃষক অংশ নেয়।


দেবহাটা: “ধান লাগিয়ে ক্ষেতে যদি ডাল পুতে দাও, পাখি বসে ধরে খাবে মাজরা পোকার ছাও” এই শ্লোগানকে সামনে রেখে দেবহাটায় বিষমুক্ত নিরাপদ খাদ্য উৎপাদনের লক্ষ্যে বোরো ধানের ক্ষেতে জাতীয় পার্চিং উৎসব পালিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকাল ১০ টায় উপজেলা কৃষি অধিদপ্তরের আয়োজনে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা জসীম উদ্দীনের নের্তৃত্বে ৫ ইউনিয়নের ১৫টি ব্লকে পার্চিং উৎসব পালিত হয়। দেবহাটার ৬ হাজার ৬০ হেক্টর জমিতে আবাদ হওয়া বোরো ধানের ক্ষেতে কর্মকর্তারা কৃষকদের নিয়ে পার্চিং অথ্যাৎ পাখি বসার জন্য ধানের খেতে গাছের ডাল বা অন্য উপকরণ ব্যবহার করে বিষমুক্ত প্রকৃতিক উপায়ে ফসলের ক্ষতিকর পোকা দমন করার উপায় বাস্তবে দেখিয়ে উৎসটি পালন করে। এসময় উপস্থিত ছিলেন উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা আহাদ আলী খান, মোস্তফা আহম্মেদ, মনিরুল ইসলাম, জিএম আল-মামুন, আহম্মদ সাঈদ, ইব্রাহিম খলিল, আফজাল হোসেন, আলাউর রহমান, জাহিদুর রহমানসহ সংশ্লিষ্ট এলাকার ব্লকের কৃষকরা।

ইসলামকাটি: তালা উপজেলার ইসলামকাটি ইউনিয়ানের গোপালপুর ও সুজনসাহায় এ পার্চিং উৎসব অনুষ্ঠিত হয়েছে। এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলার উপ সহকারী উদ্ভিদ সংরক্ষণ অফিসার শেখ আবুজাফর। এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন ইসলামকাটি ইউনিয়ানের উপ সহকারী কৃষি অফিসার মমিনুর রহমান খান, কমলেশ মন্ডল প্রমুখ। তারা কৃষক দের পার্চিং রোগ ও তার প্রতিকার সম্পর্কে নানা পরামর্শ ও লিপলেট বিতারণ করেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন কৃষক গাজী সোহগ, আব্দুল মাজিদ, রফিকুল, সমাদ, রেজাউল সহ আরও অনেক।

শ্যামনগর

যশোর

আশাশুনি


জলবায়ু পরিবর্তন