উদ্ভাবনী পণ্যে কোটি টাকার ‘সিড মানি’: পলক


ফেব্রুয়ারি ১০ ২০১৭

এসবিনিউজ ডেস্ক : তথ্যপ্রযুক্তি খাতে নির্বাচিত উদ্ভাবনী কৌশল ও পণ্যের জন্য সরকার এক কোটি টাকা পর্যন্ত ‘সিড মানি’ দেওয়ার পরিকল্পনা নিয়েছে বলে জানিয়েছেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

শুক্রবার ‘ন্যাশনাল হ্যাকাথন ফর উইমেন ২০১৭’ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা জানান। দেশে প্রথমবারের মত নারীদের জন্য আয়োজিত এ হ্যাকাথন চলছে ইনস্টিটিউট অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারস মিলনায়তনে। ৩৬ ঘণ্টার এ প্রতিযোগিতায় ৫০০ নারী নয়টি আলাদা বিষয়ে উদ্ভাবন ও সক্ষমতার পরীক্ষা দেবেন।

হ্যাকাথনের উদ্বোধন করে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশের ‘ইনোভেটিভ আইডিয়া ও প্রোডাক্ট’ বিশ্বের দরবারে হাজির করার লক্ষ্যে সরকার কাজ শুরু করেছে।

“ইনোভেশন ডিজাইন অ্যান্ড এন্টারপ্রেনারশিপ একাডেমির কাজ শুরু করেছি। আমরা ২০২১ সাল নাগাদ এক হাজার ইনোভেটিভ আইডিয়া বা প্রোডাক্ট বাংলাদেশ থেকে বিশ্বকে উপহার দিতে চাই।”

এর মধ্যে ২০০টি আগামী দুই বছরের মধ্যে বাছাই করা হবে বলে জানান তিনি।

“নির্বাচিত প্রতিটি প্রোডাক্টকে সিড মানি হিসেবে প্রথম চার মাসে এক কোটি টাকা পর্যন্ত দিতে পরিকল্পনা বা নীতিমালার খসড়া তৈরি হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর কাছে নীতিমালাটি পাঠানোর পর অনুমোদন হলেই এ কার্যক্রম শুরু হবে।”

পলক তার বক্তৃতায় প্রযুক্তি ও উদ্ভাবনের ক্ষেত্রে নারীদের নেতৃত্ব দেওয়ারও আহ্বান জানান।

“আগামী দুই বছরে দুই লাখ নারীকে প্রযুক্তি শিক্ষায় বিশেষ প্রশিক্ষণ দেওয়ার টার্গেট নিয়েছি। ইতোমধ্যে সাতটি বাসের মাধ্যমে সারাদেশে ‘টেকসই নারী উন্নয়নে আইসিটি’ এই স্লোগান সামনে নিয়ে বেসিক আইটি ট্রেনিং শুরু করেছি।”

এছাড়া লার্নিং অ্যান্ড আর্নিং প্রকল্পের আওতায় দেশে ইতোমধ্যে  ৫০ হাজার ফ্রি ল্যান্সার তৈরি হয়েছে, যাদের মধ্যে ২০ হাজার নারী বলে প্রতিমন্ত্রী জানান।

অন্যাদের মধ্যো বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেসের (বেসিস) সভাপতি মোস্তফা জব্বার, সাবেক সভাপতি শামীম আহসান, মাইক্রোসফট বাংলাদেশের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সোনিয়া বশির কবির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

 

 

শ্যামনগর

যশোর

আশাশুনি


জলবায়ু পরিবর্তন