দু’বছরে চার হাজার ইউনিয়নে যাবে অপটিক্যাল ফাইবার


ফেব্রুয়ারি ১ ২০১৭

এসবিনিউজ ডেস্ক : আগামী দুই বছরের মধ্যে সাড়ে চার হাজার ইউনিয়নে অপটিক্যাল ফাইবার কানেকটিভিটি পৌঁছে দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

সোমবার সংসদ অধিবেশনে রাষ্ট্রপতির ভাষণের উপর ধন্যবাদ প্রস্তাবের আলোচনায় অংশ নিয়ে তিনি এ তথ্য জানান।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, আগামী দুই বছরের মধ্যে সাড়ে চার হাজার ইউনিয়নকে ফাইবার অপটিক্যাল কানেকটিভিটির আওতায় আনার পরিকল্পনা রয়েছে আমাদের। গত ২২ ডিসেম্বর প্রধানমন্ত্রী জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় প্রায় ১৯শ’ কোটি টাকার বৃহৎ প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য অনুমোদন দিয়েছেন।

তিনি বলেন, আইসিটি সেক্টরে সরকারের পক্ষ থেকে প্রশিক্ষণ দিয়ে দক্ষ জনশক্তি তৈরি করে আমাদের তরুণ প্রজন্মের অফুরন্ত শক্তি কাজে লাগিয়ে ২০ লক্ষ তরুণ-তরুণীর কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করা হবে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকার প্রধানের দায়িত্ব গ্রহণ করার সময় আইটি খাতে মাত্র ২৬ বিলিয়ন ডলার রপ্তানি হয়েছিল জানিয়ে তিনি বলেন, ‘৮ বছরের ব্যবধানে আইটি রপ্তানি বেড়ে দাড়িয়েছে ৭০০ মিলিয়ন ডলারে। মাননীয় উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় আমাদেরকে একটি লক্ষ্য নির্ধারণ করে দিয়েছেন। ২০১৮ সাল নাগাদ আমরা আইসিটি সেক্টর থেকে ১ বিলিয়ন ডলার রপ্তানি করব।’

তিনি আরো বলেন, দেশের জনগণ আজকে ৫ হাজার ২৭৩টি ডিজিটাল সেন্টারে ২০০ রকম সেবা পাচ্ছে। এই সেন্টারগুলো থেকে প্রতি মাসে ৬০ লাখ জনগণ সেবা নিচ্ছে। আমরা ছয়শো মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন করেছি। বাংলাদেশে এখন প্রায় ১০ কোটি মোবাইল সেট মানুষের হাতে হাতে রয়েছে। এই ১০ হাজার মোবাইল সেট গড়ে প্রায় পাঁচ হাজার টাকা করে মূল্য ধরলেও এগুলোর দাম হয় প্রায় ৫০ হাজার কোটি টাকা। এখন আমরা শুধু শ্রম নির্ভর অর্থনীতির উপর দাঁড়িয়ে না- একটি মেধাভিত্তিক ডিজিটাল বাংলাদেশ গঠনের জন্য দ্রুত গতিতে এগিয়ে যাচ্ছি। আমরা এখন গবেষণায় জোর দিচ্ছি।

তিনি বলেন, সরকারের আট বছরের ব্যবধানে ২৬ মিলিয়ন ডলারের আইটি এক্সপোর্ট বেড়ে আজকে দাঁড়িয়েছে ৭০০ মিলিয়ন ডলারে। প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় আমাদের লক্ষ্য নির্ধারণ করে দিয়েছেন। ২০১৮ সাল নাগাদ আইটি সেক্টর থেকে এক বিলিয়ন ডলার রপ্তানি আয় আসবে বাংলাদেশে

সারাদেশে ১ লক্ষ ৭০ হাজার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ৪ কোটি ২৭ লক্ষ শিক্ষার্থীদের জন্য বিশাল পরিকল্পনা হাতে নেয়া হয়েছে বলেও জানান তিনি।

তিনি আরও জানান, সরকার সারা বাংলাদেশে সাড়ে ৫ হাজার কম্পিউটার ল্যাব, ২ হাজার ১টি শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাব স্থাপন করেছে। আগামী ৩ বছরে প্রাইমারি, হাইস্কুল এবং কলেজ লেভেলে আরও ১৫ হাজার শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাব স্থাপন করা হবে।

শ্যামনগর

যশোর

আশাশুনি


জলবায়ু পরিবর্তন