সাতক্ষীরার জেলে-বাওয়ালী আর পর্যটকদের জন্য খুলে দেওয়া হলো সুন্দরবন


সেপ্টেম্বর ১ ২০২৩

রঘুনাথ খাঁ, সাতক্ষীরা :

দীর্ঘ তিন মাস বন্ধ থাকার পর শুক্রবার থেকে খুলে দেওয়া হলো সুন্দরবন। এতে ব্যাপক খুশি জেলে-বাওয়ালী ও পর্যটকরা। পর্যটনকে ঘিরে ইতোমধ্যে ব্যাপক প্রস্তুতি নিয়েছে বনবিভাগ ও ট্রলার মালিকরা। এছাড়া আজ থেকে মাছ ও কাঁকড়া ধরতে সুন্দরবনে ঢুকতে শুরু করেছে জেলেরা।

সুন্দরবনের সাতক্ষীরা রেঞ্জ সূত্রে জানা গেছে,সামদ্রিক মৎস্য প্রজাতির প্রজনন মৌসুম হওয়ায় ১জুন থেকে ৩১ আগষ্ট পর্যন্ত সুন্দরবনের সব নদী-খালে মাছ ধরা নিষিদ্ধ করা হয়। এছাড়া নিষিদ্ধ করা হয় সব ধরণের পর্যটন। এতে ব্যাপক ক্ষতির মুখে পড়ে জেলে-বাওয়ালী ও পর্যটনের সাথে সংশ্লিষ্টরা। জেলে ও বাওয়ালীদের তিন মাসে চাল দেওয়া হলেও তা পর্যাপ্ত নয় বলে জানা যায়। খুলে দেওয়ার প্রথম দিন বলে পর্যটক একেবারে কম। তবে সুন্দরবন খুলে দেওয়ায় উৎফুল্ল জেলে-বাওয়ালী ও পর্যটনের সাথে সংশ্লিষ্টরা।

শুক্রবার সুন্দরবন বেড়াতে আসা ময়মনসিংহ জেলার ফুলপুর উপজেলার রামসেনা গ্রামের আসাদুজ্জামান খান মৃত্তিকা জানান, তিন মাস বন্ধ থাকার পর সুন্দরবনের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্য, মনোরম পরিবেশ ও বানরের কিচির মিচির তাকে মুগ্ধ করেছে।
একইভাবে লÐন প্রবাসী ময়মনসিং এর ফুলপুর উপজেলা সদরের ফরিদউদ্দিন বলেন, সুন্দরবন দেখতে এসে যার পর নেই তিনি ও তার দুই মেয়ে খুশী। সুন্দরবন তাকে বারবার কাছে টানে।

গাবুরা ইউনিয়নের ৯নং সোরা গ্রামের আব্দুল হাকিম বলেন, সুন্দরবনে মাছ ধরা বন্ধ থাকায় তিন মাস বসে বসে কাটিয়েছেন।অনেক টাকা ঋণী হয়েছেন। আবার ঋণ করে চালসহ বিভিন্ন মালামাল কিনে সুন্দরবনের উদ্দেশ্যে আজ যাত্রা শুরু করেছেন। আশা করি ভাল মাছ পেলে ঋণ দেনা তেকে মুক্ত হওয়া যাবে।
মাছ-কাকড়া ধরতে বনবিভাগ ইতোমধ্যে বোট লাইসেন্স সার্টিফিকেট ইস্যু করেছে প্রায় তিন হাজার । আরও ইস্যু করা হয়েছে পর্যটকবাহী শতাধিক ট্রলারের পাস ।#

শ্যামনগর

যশোর

আশাশুনি


জলবায়ু পরিবর্তন