সেক্টরের অধিনায়ক, মানবাধিকার আন্দোলনের পুরোগামী নেতা মেজর জেনারেল (অব.) সি আর দত্তের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছে একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি


আগস্ট ২৫ ২০২০

শোক বিবৃতি
ঢাকা, ২৫ আগস্ট ২০২০
১৯৭১-এ মুক্তিযুদ্ধকালে ৪নং সেক্টরের অধিনায়ক, মানবাধিকার আন্দোলনের পুরোগামী নেতা মেজর জেনারেল (অব.) সি আর দত্তের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছে একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি। আজ (২৫ আগস্ট) সংগঠনের এক শোক বার্তায় বলা হয়-
‘১৯৭১-এ মুক্তিযুদ্ধকালে ৪নং সেক্টরের বীর অধিনায়ক, মুক্তিযুদ্ধোত্তর বাংলাদেশে মানবাধিকার আন্দোলনের অন্যতম নেতা মেজর জেনারেল (অব.) সি আর দত্তের মৃত্যুতে আমরা গভীরতম শোক প্রকাশ করছি।
‘১৯৭৫ সালে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং মুক্তিযুদ্ধে নেতৃত্বপ্রদানকারী তাঁর প্রধান সহযোদ্ধাদের নৃশংস হত্যাকাণ্ডের পর পাকিস্তানপন্থী সামরিক শাসকরা অবৈধভাবে ক্ষমতা দখল করে বাংলাদেশের রাজনীতি ও সমাজ যেভাবে মৌলবাদীকরণ, সাম্প্রদায়িকীকরণ ও দুর্বৃত্তায়ন করেছে তার বিরুদ্ধে নাগরিক সমাজের আন্দোলনে জেনারেল দত্ত ছিলেন একজন পুরোগামী নেতা। বিশেষভাবে ধর্মীয় ও জাতিগত সংখ্যালঘুদের সংবিধান প্রদত্ত অধিকার ও মর্যাদা রক্ষার আন্দোলনে তার অসামান্য সাহসী অবস্থান সব সময় আমাদের প্রেরণা জোগাবে।
‘আমরা মহান মুক্তিযোদ্ধা জেনারেল দত্তের শোকসন্তপ্ত পরিবার এবং তাঁর আন্দোলনের সহযোদ্ধাদের প্রতি গভীর সমবেদনা ও সহমর্মিতা জ্ঞাপন করছি।’
স্বাক্ষরদাতা-
বিচারপতি মোহাম্মদ গোলাম রাব্বানী, বিচারপতি সৈয়দ আমিরুল ইসলাম, বিচারপতি শামসুল হুদা, বিচারপতি শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক, লেখক সাংবাদিক আবদুল গাফফার চৌধুরী, অধ্যাপক অনুপম সেন, কথাশিল্পী হাসান আজিজুল হক, শিল্পী হাশেম খান, শিল্পী রফিকুননবী, অধ্যাপিকা পান্না কায়সার, অধ্যাপিকা মাহফুজা খানম, ক্যাপ্টেন আলমগীর সাত্তার বীরপ্রতীক, ক্যাপ্টেন সাহাবউদ্দিন আহমেদ বীরউত্তম, ক্যাপ্টেন আকরাম আহমেদ বীরউত্তম, মেজর জেনারেল মোহাম্মদ আবদুর রশীদ (অবঃ), ডাঃ আমজাদ হোসেন, ড. নূরন নবী, লেখক সাংবাদিক শাহরিয়ার কবির, অধ্যাপক মুনতাসীর মামুন, শহীদজায়া শ্যামলী নাসরিন চৌধুরী, শহীদজায়া সালমা হক, কলামিস্ট সৈয়দ মাহবুবুর রশিদ, শিক্ষাবিদ মমতাজ লতিফ, অধ্যাপক আবুল বারক আলভী, সমাজকর্মী কাজী মুকুল, ড. ফরিদা মজিদ, এডভোকেট খন্দকার আবদুল মান্নান, অধ্যাপক আয়েশ উদ্দিন, অধ্যাপক মেজবাহ কামাল, ডাঃ শেখ বাহারুল আলম, ড. মেঘনা গুহঠাকুরতা, ডাঃ ইকবাল কবীর, মুক্তিযোদ্ধা মকবুল-ই এলাহী, অধ্যাপক ডা. উত্তম কুমার বড়ুয়া, মুক্তিযোদ্ধা শফিকুর রহমান শহীদ, এডভোকেট আবদুস সালাম, অধ্যাপক মোহাম্মদ সেলিম, অধ্যাপক আবদুল গফ্ফার, কবি জয়দুল হোসেন, ব্যারিস্টার ড. তুরিন আফরোজ, মুক্তিযোদ্ধা কাজী লুৎফর রহমান, সাবেক ফুটবলার শামসুল আলম মঞ্জু, সমাজকর্মী কামরুননেসা মান্নান, এডভোকেট আজাহার উল্লাহ্ ভূঁইয়া, সঙ্গীতশিল্পী জান্নাত-ই ফেরদৌসী লাকী, ডাঃ মামুন আল মাহতাব, সাংবাদিক শওকত বাঙালি, উপাধ্যক্ষ কামরুজ্জামান, সমাজকর্মী সরদার জাকির হোসেন খসরু, ডাঃ নুজহাত চৌধুরী শম্পা, লেখক আলী আকবর টাবী, সমাজকর্মী চন্দন শীল, এডভোকেট দীপক ঘোষ, সাংবাদিক মহেন্দ্র নাথ সেন, শহীদসন্তান তৌহিদ রেজা নূর, শহীদসন্তান শমী কায়সার, শহীদসন্তান আসিফ মুনীর তন্ময়, শহীদসন্তান তানভীর হায়দার চৌধুরী শোভন, মানবাধিকারকর্মী তরুণ কান্তি চৌধুরী, লেখক সাংবাদিক সাব্বীর খান, মানবাধিকারকর্মী আনসার আহমদ উল্লাহ, মানবাধিকারকর্মী স্বীকৃতি বড়ুয়া, ব্যারিস্টার নাদিয়া চৌধুরী, কবি দিব্যেন্দু দ্বীপ, অধ্যাপক সুজিত সরকার, সমাজকর্মী হারুণ অর রশীদ, এডভোকেট কাজী মানসুরুল হক খসরু, এডভোকেট মালেক শেখ, সহকারী অধ্যাপক তপন পালিত, সমাজকর্মী পূর্ণিমা রাণী শীল, সমাজকর্মী শিমন বাস্কে, সমাজকর্মী শেখ আলী শাহনেওয়াজ পরাগ, সমাজকর্মী সাইফ উদ্দিন রুবেল প্রমুখ।
(কাজী মুকুল)

শ্যামনগর

যশোর

আশাশুনি


জলবায়ু পরিবর্তন