জলবায়ু পরিষদের মানববন্ধনের এক সপ্তাহের মধ্যে মুন্সীগঞ্জ বাজারের পাশে নির্মিত হচ্ছে স্লুইজ গেটের রেলিং


মার্চ ১৭ ২০১৮

মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি: বৃহত্তর শ্যামনগর উপজেলার পর্যটন সড়ক মুন্সিগঞ্জ বাজারস্থ্য স্লুইজ গেটের রেলিং নির্মান কাজ শুরু করেছে পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো)। জলবায়ু পরিষদের মানববন্ধনের এক সপ্তাহের মধ্যে (গত বৃহস্পতিবার সকাল থেকে) মুন্সীগঞ্জ বাজারস্থ্য স্লুইজ গেটের রেলিং নির্মান কাজ শুরু হওয়ায় স্থানীয় বাজার ব্যবসায়ী, স্থানীয় সরকার প্রতিনিধি, জেলা পরিষদ সদস্যসহ সুশীল সমাজের ব্যক্তিবর্গ জলবায়ু পরিষদের সদস্যদের ধন্যবাদ জানিয়েছেন।

উপকুলীয় এলাকায় ৬০ এর দশকের পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো) এর আওতায় কৃষি কাজের উদ্দেশ্যে পোল্ডার বাঁধ নির্মিত হয়। পরবর্তী সময়ে যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নতি হওয়ায় এই স্লুইজ গেটের উপর দিয়ে প্রতি দিন শতশত ভারী যানবাহনে যাতায়াত করতে শুরু করে। এখানে ৪ টি ইউনিয়ন গাবুরা, বুড়িগোয়ালিনী, আটুলিয়া ও মুন্সীগঞ্জ ইউনিয়নের লক্ষ্যাধিক মানুষ এই স্লুইজ গেটের উপর দিয়ে বিভিন্ন যানবাহনে জেলা ও উপজেলা শহরে যাতায়াত করে থাকে। মুন্সীগঞ্জ বাজারটি নিত্য দিনের প্রয়োজনীয় মালামাল বিক্রয়ের প্রান কেন্দ্র, এছাড়া অর্ধ কিলোমিটারের মধ্যে রয়েছে আকাশলীনা ইকো ট্যুরিজম সেন্টার ও ৩ টি স্থানে মৎস্য বিক্রয় কেন্দ্র, ৯ টি স্কুল, ২ টি কলেজের শিক্ষীর্থী, ৮ টি চিংড়ী ও কাঁকড়া হ্যাচারীর মালামাল এই স্লুইজ গেটের উপর দিয়ে মানুষের ঝুঁকি নিয়ে যাতায়াত করতে হয়।

বুড়িগোয়ালিনী ইউপি চেয়ারম্যান বাবু ভবতোষ কুমার মন্ডল বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০১৬ সাল বাংলাদেশকে পর্যটন বর্ষ ঘোষণা করায়, পর্যটন শিল্পোউন্নতি করতে বাংলাদেশের দক্ষিণ পশ্চিম উপকুলীয় অঞ্চলে সুন্দরবনকে ঘিরে গড়ে উঠেছে বিভিন্ন পার্ক, হোটেল-মোটেল, কমিউনিটি গেষ্ট হাউজ, রেস্টুরেন্ট। রেলিং নির্মান কাজ শুরু হওয়ায় চেয়ারম্যান ভবতোষ কুমার মন্ডল বিশেষভাবে ধন্যবাদ জানিয়েছে জলবায়ু পরিষদ, শ্যামনগর ও পানি উন্নয়ন বোর্ডের সংশ্লিষ্ট সকলকে।

মুন্সীগঞ্জ বাজারের পাশে বুড়িগোয়ালিনী ইউনিয়নে কলবাড়ীতে প্রায় ৮০ একর জায়গাতে ৩ নদীর মোহনায় গড়ে উঠেছে আকাশলীনা ইকো ট্যুরিজম সেন্টার। এই বিনোদন মূলক পার্কে প্রতিদিন আগত দর্শনার্থীদের স্লুইজ গেটের উপর দিয়ে যাতায়াত করতে হয়। শ্যামনগর উপজেলার পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তা মাসুদ রানা বলেন, শ্যামনগর জলবায়ু পরিষদ উপকূলীয় অঞ্চলে নদী ভাঙ্গন, স্লুইচ গেট, জলাভূমি নিয়ে আন্দোলন করে যাচ্ছে। আমি তাদের কাজে সবসময় সহযোগীতা করি।

শ্যামনগর

যশোর

আশাশুনি


জলবায়ু পরিবর্তন